নোয়াখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৬

imagesনিজস্ব প্রতিবেদক: শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নোয়াখালীর সদর উপজেলায় উত্তর ওয়াপদা এলাকার আইন্না লাছা নামক স্থানে মোবাইল অপারেটর কোম্পানী বাংলালিংকের শ্রমিক বহনকারী পিকআপ ও যাত্রীবাহী সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এসময় পিকআপ ও অটোরিকশা দুটোই ধুমড়ে মুছড়ে গেলে ৭জন গুরুত্বর আহত হয়। আহতদের মধ্যে মোয়াজ্জেম হোসেন (২৭) নামের এক অটোরিকশা যাত্রীকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা নেওয়ার পথে সে মারা যায়। নিহত মোয়াজ্জেম হোসেন সুবর্ণচর উপজেলার পশ্চিম চরজব্বর গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে।

আহতরা হচ্ছেন- অটোরিকশা যাত্রী সুবর্ণচর উপজেলার পশ্চিম চর জব্বর গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে জহির উদ্দিন (৩৫) ও সদর উপজেলার মধ্যম চর উরিয়া গ্রামের আলী আকবরের ছেলে বাবুল (২৬)।

অপর দিকে পিকআপে থাকা আহত বাংলালিংকের শ্রমিকরা হচ্ছেন- ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আলা উদ্দিন (২২), মো. শাহ্জাহান (২৭) (পিতা ও পরিচয় পাওয়া যায়নি), নেত্রকোনা জেলার আবদুল ছাত্তারের ছেলে মো. সোহেল (২৩) ও সদর উপজেলার ভাটির টেক গ্রামের নূর ইসলামের ছেলে মো. রিপন (২৬)। আহতরা প্রত্যেকে পুলিশ হেফাজতে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে আইন্না লাছা নামক এলাকায় মোবাইল অপারেটর কোম্পানী বাংলালিংকের টাওয়ারের কয়েকজন শ্রমিক বহনকারী একটি পিকআপ ও যাত্রীবাহী সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষ হয়। এ সময় পিকআপ ও অটোরিকশাটি সড়কের পার্শ্বের গাছের সাথে ধাক্কা লেগে ধুমড়ে-মুছড়ে যায়। এ সময় ৮জন গুরুতর হয়। খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান। আহতদের মধ্যে মোয়াজ্জেম হোসেনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাঁকে ঢাকা নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

সুধারাম থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন বলেন, দুর্ঘটনায় একজন নিহত হন এবং আরও ৬ জন আহত অবস্থায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।