মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৪-০৭-২০১৫ Time:৩:৪৩ অপরাহ্ণ


Untitled-13

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বালুভর্তি প্রায় ১ লাখ জিও ব্যাগ ফেলেও প্রচণ্ড স্রোতের কারণে রক্ষা করা যাচ্ছে না প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ অংশের এলাকা। পদ্মার অবিরাম ভাঙনে সেতু প্রকল্পের কাজে ব্যাপক ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে।অব্যাহত ভাঙনে মুখে রয়েছে পদ্মাসেতু প্রকল্প। পদ্মার ভাঙনের কবলে নতুন করে ঝুঁকিতে পড়েছে প্রকল্পের ২ নম্বর জেটি।

একাধিক সূত্র মতে, গত সপ্তাহ দুই আগে লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ প্রকল্প এলাকায় প্রথম দফায় প্রকল্পের চার নম্বর জেটির কাছে প্রায় ৫০০ ফুট বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ভাঙন দেখা দিলে ব্যাঘাত ঘটে গান্টি ক্রেন স্থাপনের কাজ। ভাঙন রোধে দিনরাত বিরামহীন কাজ করে চেষ্টা চালাচ্ছে শ্রমিকরা। বিগত সপ্তাহে একই জায়গায় ২য় দফায় ভাঙন দেখা দিলে ঝুঁকির মধ্যে পড়ে পাইলিং ওয়ার্কসপ এবং ৪নং জেটি।

নদীর উপরের স্রোতের তুলনায় নীচের অংশের স্রোতের গতি কয়েক গুন বেশি থাকায় নীচ থেকে মাটি সড়ে গিয়ে হঠাৎ করে নতুন নতুন এলাকা ধ্বসে পড়েছে। আর ২নং জেটির কাছে কয়েকশ ফুট এলাকায় আকস্মিক ভাঙনের ফলে নতুন করে ঝুঁকির মুখে পড়ে ২নং জেটিটি।

পদ্মাসেতু নির্মাণের মালামাল ওঠানামা ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের জাহাজ এবং স্পিডবোট ভিড়ানোর জন্য এ প্রকল্পে মোট ৪টি জেটি তৈরির কথা রয়েছে। ইতোমধ্যে তৈলিকৃত ৩টির মধ্যে ঝুঁকিতে রয়েছে ২টি জেটি।

এদিকে, পদ্মায় অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধিতে উত্তাল ঢেউ ও প্রচণ্ড ঘূর্ণিস্রোতের কারণে লৌহজং উপজেলার কুমারভোগ, মাওয়া, কান্দিপাড়া, যশলদিয়া ও শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল বাজার, মান্দ্রা, বাঘরা, কবুতর খোলা, কেদারপুর, চারিপাড়া, মাগডাল গ্রামসহ বেশ কিছু নদী তীরবর্তী এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াছমিন এমিলি বলেন, ‘পদ্মার এ ভাঙন স্বাভাবিক। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই সরকার পদ্মাসেতুর কাজ হাতে নিয়েছে।’

অতিদ্রুত ভাঙন রোধ করতে না পারলে বিলীন হয়ে যেতে পারে প্রকল্প এলাকাটি আশঙ্কা অনেকের।