মর্নিংসান২৪ডটকম Date:৩১-০৮-২০১৪ Time:১২:৩৫ অপরাহ্ণ


e

সাবেক রাষ্ঠ্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ বলেছেন, বাংলার জনগণের মনে কোনো শান্তি নেই। গত এক মাসে সারা দেশে ৩৫টি খুন হয়েছে। কোনো খুনের বিচার হয়নি। তাই একদিনও এ সরকারের মতায় থাকার অধিকার নেই।
শনিবার বিকেলে সোনারগাঁয়ের ঐতিহাসিক আমিনপুর মাঠে সোনারগাঁও উপজেলা জাতীয় পার্টি আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
এরশাদ বলেন, বাংলাদেশ আজ খুন ও গুমের রাজত্বে পরিণত হয়েছে। গত কয়েকদিন আগে চ্যানেল আই’র ইসলাম বিষয়ের উপস্থাপক মাওলানা ফারুকী খুন হয়েছেন। একের পর এক খুন, হত্যা ও গুম চলছেই। বর্তমান সরকারের খুন ও গুমের হিসাব করতে গেলে হাতে ক্যালকুলেটর নিতে হবে। তিনি আওয়ামী লীগ বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সময় এসেছে, আপনারা এ দুই দল ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিন। জনগণ আগামীতে জাতীয় পার্টিকে মতায় দেখতে চায়। আমার আমলে বাংলাদেশে যে উন্নয়ন হয়েছে কোনো সরকার এ উন্নয়ন করতে পারেনি। আগামীতে মতায় আসলেও এ ধারা অব্যাহত রাখা হবে। বর্তমানে রাজপথে আওয়ামী লীগ নেই, বিএনপি নেই, জাতীয় পার্টি রাজপথে আছে, জাতীয় সংসদেও আছে। তিনি বলেন, গণতন্ত্র মানে নির্বাচন নয়, গণতন্ত্র মানে শান্তি। আমার আমলে খুন ও গুম কিছুই ছিল না। আওয়ামী লীগ সরকার দলীয়করণ করে প্রশাসনকে অকার্যকর করে দিয়েছে। শুধু তাই নয় জনগণ দুই নেত্রীর কাউকে আর মতায় দেখতে চায় না। তিনি বিএনপিকে ইঙ্গিত করে আরো বলেন, যুবরাজ তারেক জিয়া বলেছিলেন বিএনপি মতায় আসলে আমার কোমরে রশি বেঁধে সাধারণ কয়েদিদের সঙ্গে জেলখানায় রাখবে। দেশের মানুষ দেখছে, কার কোমরে রশি পড়েছে। তারেক জিয়ার নাম শুনলে দেশের মানুষ ভয় পায়। মানুষের রক্ত টাণ্ডা হয়ে আসে। তারেক জিয়া মতায় আসলে দেশের মানুষ অশান্তিতে থাকবে। তারেক জিয়াকে দেশের মানুষ পছন্দ করে না। খালেদা জিয়া বলেছিলেন, জেলখানায় ঢুকাবে জীবন্ত এরশাদকে আর বের করা হবে লাশ। আমি জেলেও যাইনি, লাশও হইনি। খালেদা জিয়াকেই জেলে যেতে হয়েছে।
এরশাদ বর্তমান সরকারের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সোনারগাঁয়ে যে গ্যাস সংযোগ দেওয়া হয়েছে তা যদি অবৈধ হয়ে থাকে তাহলে তা দ্রুত বৈধ করে দিন। এসব গ্যাস সংযোগ বিছিন্ন করবেন না। জনগণকে আর কষ্ট দেবেন না। জনগণকে কষ্ট দিয়ে কোনো সরকার টিকে থাকতে পারে না। এতো অবিচার ও দুঃশাসন আর মানুষ চায় না।
অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পাটির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু এমপি, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, সোনারগাঁ পৌরসভার মেয়র সাদেকুর রহমান। এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, সোনারগাঁ জাতীয় পার্টির সভাপতি অনন্যা হুসেইন মৌসুমী, সাবেক সভাপতি আলী হোসেন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী এরশাদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন