শাহ আমানত আসছে এপিবিএন’র বেস্টনীতে

শাহ আমানত আসছে এপিবিএন’র বেস্টনীতে
শাহ আমানত আসছে এপিবিএন’র বেস্টনীতে
শাহ আমানত আসছে এপিবিএন’র বেস্টনীতে

এ,এইচ,এম সুমন চৌধুরী, চট্টগ্রাম :
পুরো  বিমানবন্দরকে এপিবিএন’র বেস্টনীতে আনার উদ্যোগের অংশ হিসেবে বিভিন্ন পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে। আর্মডপুলিশ ব্যাটেলিয়নের (এপিবিএন) ৬০০ সদস্য দিয়ে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা আরও সুদৃঢ় করার উদ্যোগও নেয়া হয়েছে। এজন্য বিমানবন্দরে মোতায়েন করা এপিবিএন’র সংখ্যা আরও বাড়ানো চেষ্টা চলছে। চাহিদা মোতাবেক এপিবিএন সদস্য পাওয়া গেলে পতেঙ্গায় মূল সড়ক থেকে শাহ আমানত বিমানবন্দরের প্রবেশপথ, রানওয়েসহ সীমানা দেয়ালের বিভিন্ন পয়েন্ট ওই বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন।

বর্তমানে এক’শ এপিবিএন সদস্য বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে। বিমানবন্দরে যাত্রী ও আগতদের তল্লাশির দায়িত্ব পালন করছে এপিবিএন। এছাড়া বিমানবন্দরে সার্বিক শৃঙ্খলার ‍দায়িত্বও গেছে এপিবিএন’র হাতে। ইতিমধ্যে আরও ৪৯০ জন এপিবিএন সদস্য চেয়ে ওই বাহিনীর প্রধানের কাছে চিঠি দিয়েছে সিএমপি। সিএমপি’র চাহিদা মোতাবেক ৫৯০ জন এপিবিএন সদস্য পাওয়া গেলে বিমানবন্দরের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আর কোন ঘাটতি থাকবেনা বলে মনে করছেন স্পর্শকাতর এই স্থাপনাটিতে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তারা। যাত্রীবাহী বিমান ছিনতাই বা বিস্ফোরকসহ বিমানবন্দরে প্রবেশ করে নাশকতার আশঙ্কায় ২৭ অক্টোবর থেকে চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে এপিবিএন মোতায়েন করা হয়।

এ প্রসঙ্গে নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (ইমিগ্রেশন) মো.সরওয়ার আলম বলেন, এপিবিএন’র মোট ৫৯০ জন ফোর্স চেয়ে আমরা চিঠি দিয়েছি। এর মধ্যে এক’শ জন ইতোমধ্যে দায়িত্ব পালন করছে। বাকি ফোর্স এপিবিএন যাতে দ্রুত বরাদ্দ দেয় সেই চেষ্টা করছি। সিএমপিতে প্রাত্যহিক কাজে এপিবিএন’র যেসব ফোর্স কাজ করছে তাদের থেকেও আনার চেষ্টা করছি।
এদিকে ৩ নভেম্বর থেকে অস্ত্র-বিস্ফোরক বহনকারীদের শনাক্ত করতে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিজিবি ডগ স্কোয়াড মোতায়ন করেছে । বিমানবন্দরসহ বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থাপনায় জঙ্গি হামলার আশংকার মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বিজিবি’র ১২ জন সদস্য এবং দু’টি প্রশিক্ষিত কুকুরের সমন্বয়ে এ কার্যক্রম শুরু করে বিজিবি।