নগরীতে ‘ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার’ পরিচয়ে প্রতারণা

 

নগরীতে ‘ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার’ পরিচয়ে প্রতারণা
নগরীতে ‘ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার’ পরিচয়ে প্রতারণা

চট্টগ্রাম অফিস :
নগরীতে ‘ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার’ পরিচয়ে প্রতারণা শুরু হয়েছে। এটা চট্টগ্রামে একেবারে প্রথম শুরু হয়েছে। নগরীতে মো.আনোয়ার হোসেন নামে তরুণ এক শিল্পপতিকে হয়রানির অভিযোগে মামলা দায়েরের পর পুলিশ এই প্রতারক চক্রের বিষয়ে জানতে পেরেছে।
প্রতারণার ক্ষেত্রে সাধারণত বেসরকারি ব্যাংকগুলোর পরিচয় ব্যবহার করা হচ্ছে। ছোট-বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, ব্যবসায়ীদের কাছে প্রথমে ঋণ আদায়ের উদ্দেশ্যে গিয়ে কথাবার্ত বলে প্রতারকরা। এরপর টাকা দাবি করে। কেউ টাকা দিতে না চাইলে তাকে মামলায় জড়িয়ে হয়রানির হুমকি দেয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রামের উঠতি শিল্প প্রতিষ্ঠান ক্লুইস্টন গ্রুপের পক্ষ থেকে সরাসরি আদালতে এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার বাদি ক্লুইস্টন গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, গত ২৫ অক্টোবর তাদের আগ্রাবাদের অফিসে স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার ক্রেডিট অফিসার পরিচয়ে এস এম জাকের উল্ল্যাহ নামে একজন হাজির হন। ওই ব্যাংকের কাছে ক্লুইস্টন গ্রুপের ঋণ ছিল। ওই ঋণ সহসা পরিশোধ করতে হবেনা-এমন প্রলোভন দেখিয়ে তাদের একজন পরিচালকের কাছে দশ লক্ষ টাকা চাঁদ‍া দাবি করেন। পরবর্তীতে ক্লুইস্টন গ্রুপ স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ায় খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, ওই নামে তাদের কোন ক্রেডিট অফিসার নেই। এ ঘটনায় ১৯ নভেম্বর আদালতে মামলা দায়ের হয়। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য ডবলমুরিং থানাকে নির্দেশ দিয়েছে। মামলার আরজিতে আনোয়ার অভিযোগ করেন, ক্লুইস্টন গ্রুপের কাছ থেকে টাকা আদায় করতে না পেরে জাকের আরও তিন সহযোগীসহ ১৬ নভেম্বর আগ্রাবাদে প্রকাশ্যে রাস্তায় তাকে মারধর করে। এসময় তারা নিজেদের ডিবি পুলিশ বলে পরিচয় দেয়।

নগর পুলিশের সহকারি কমিশনার (ডবলমুরিং জোন) উ খ্য সিং বলেন, ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার পরিচয়ে সমাজের প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পেয়েছি। অনেক ব্যবসায়ী ঋণ নিয়েছেন। তাদের ঋণ পরিশোধ যাতে করতে না হয় সে ব্যাপারে সমাধানের আশ্বাস দিয়ে চাঁদা চাওয়া হচ্ছে। বিষয়টা অ্যালার্মিং। আমরা এ ব্যাপারে অনুসন্ধান শুরু করেছি।
এ ধরনের একটি মামলা ডবলমুরিং থানা তদন্ত করছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডবলমুরিং থানার এস আই কায়সার হামিদ বলেন, জাকের উল্লাহ আদৌ স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার ক্রেডিট অফিসার কিনা সেটা নিয়ে তদন্ত চলছে। প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি, সে ওই ব্যাংকের ক্রেডিট অফিসার কিংবা ঋণ আদায়ের মনোনীত কোন প্রতিনিধি নয়। তদন্তে সত্যতা পেলে আদালতে প্রতিবেদন জমা দিয়ে আমরা তাকে গ্রেপ্তারের অনুমতি চাইব।

এরপর ৩১ অক্টোবর নগরীর মুরাদপুরে ডেল্টা ক্লিনিকের ভেতরে একই পরিচয়ে দেলোয়ার হোসাইন চৌধুরী নামে একজনের কাছ থেকে প্রাইভেট কারের চাবি ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে একই প্রতারক চক্র। তাদের অভিযোগ, দেলোয়ার স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার কাছে গাড়িটি বন্ধক রেখেছিল। বন্ধকী ঋণ পরিশোধের মেয়াদ শেষ হওয়ায় তারা গাড়িটি নিতে এসেছে। এ ঘটনায় দেলোয়ার জাকিরের বিরুদ্ধে পাঁচলাইশ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।
বাংলাদেশ ব্যাংককেও আমরা বিষয়টি অবহিত করব বলে সহকারি পুলিশ কমিশনার উ খ্য সিং জানান ।