শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় শেষ হল আখেরি মোনাজাত

শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় শেষ হল আখেরি মোনাজাত
শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় শেষ হল আখেরি মোনাজাত

ডেস্ক রির্পোট :
মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় শেষ হল বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত।
এই আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে লাখো মানুষের ঢল নেমেছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে। ইজতেমা মাঠ ও আশপাশের এলাকা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে । মোনাজাত পরিচালনা করেন তাবলিগের শীর্ষ মুরুব্বি ভারতের মাওলানা সাদ। রবিবার বেলা ১১টা ৫ মিনিটে শুরু হয়ে মোনাজাত চলে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। মোনাজাতের আগে হেদায়াতি বয়ান করেন মাওলানা সাদ। এতে তিনি দাওয়াত ও তাবলিগের মূলনীতি সম্পর্কে আলোচনা করেন। মুসলমানরা কিভাবে জীবন পরিচালনা করবেন এ সম্পর্কেও তিনি দিকনির্দেশনা দেন। আরবি ও উর্দু ভাষায় মোনাজাত করেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে হাত তোলেন লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি। মোনাজাতে আত্মশুদ্ধি ও নিজ নিজ গুনাহ মাফের পাশাপাশি দুনিয়ার সব বালা-মুসিবত থেকে হেফাজত করার জন্য দুই হাত তুলে মহান আল্লাহর দরবারে রহমত প্রার্থনা করেন তারা।

এবার বিশ্ব ইজতেমার প্রথম ধাপে অংশ নিয়েছেন ঢাকাসহ ১৭টি জেলার তাবলিগের মুসল্লিরা। ১৫ জানুয়ারি থেকে অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় ধাপে অংশ নেবে ঢাকাসহ ১৬টি জেলার মুসল্লিরা। আগামী ১৭ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপের আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটবে এ বছরের দুধাপের বিশ্ব ইজতেমা। এ দুই ধাপে ৩৩টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নিচ্ছেন।

আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা। পাঁচ স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তার ব্যবস্থার পাশাপাশি অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা পুলিশ।

এদিকে মুসুল্লিদের নির্বিঘ্নে যাতায়াত সুবিধার জন্য টঙ্গী জংশন থেকে ২৩টি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ভোর থেকে মোনাজাত শেষ না হওয়া পর্যন্ত ইজতেমা পাশের সড়কে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

টঙ্গী স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মো. হালিমুজ্জামান জানান, মুসল্লিদের যাতায়াতের সুবিধার্থে আখেরি মোনাজাতের দিন ২৩টি বিশেষ ট্রেন এবং সব ট্রেনে অতিরিক্ত বগি সংযোজনসহ ১১১টি ট্রেন টঙ্গী স্টেশনে যাত্রা বিরতির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। আগামী ১৫ জানুয়ারি শুরু হবে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। এতে ১৬ জেলার লোক অংশ নেবেন।