কক্সবাজারে পাহাড়ে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদ

কক্সবাজারে পাহাড়ে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদ
কক্সবাজারে পাহাড়ে অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদ

চট্টগ্রাম অফিস: কক্সবাজারে সরকারি পাহাড়ে নির্মিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে জেলা প্রশাসন। এসময় সৈকত পাড়ার পাশ্ববর্তী তিনটি সরকারি পাহাড়ে অবৈধভাবে নির্মিত সাতটি ঘর উচ্ছেদ করা হয়। আরও বেশ কয়েকটি ঘরের বাসিন্দাদের ৩ দিনের মধ্যে সরে যাওয়ার নিদের্শ দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে পরিচালিত এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল ইসলাম ও কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সরদার শরিফুল হক। অভিযানে সদর ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার কামরুজ্জামান সোহাগ ও কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের একটি টিম সহযোগিতা করেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, সৈকত পাড়ার পাশ্ববর্তী তিনটি সরকারি পাহাড়ে অবৈধভাবে নির্মিত সাতটি ঘর উচ্ছেদ করা হয়। কক্সবাজার শহরের সুগন্ধা পয়েন্ট হয়ে সী-ইন হোটেলে যাওয়ার রাস্তার দু’পাশের বেশ কয়েকটি অবৈধ দোকানও উচ্ছেদ করা হয়েছে। এছাড়া বেশ কয়েকটি ঘরের বাসিন্দাদের ৩ দিনের মধ্যে সরে যাওয়ার নিদের্শ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, পাহাড় না থাকলে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প বলতে কিছুই থাকবে না। তাই পাহাড় রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। সরকারি পাহাড় দখল করে যারা ঘরবাড়ি করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সরদার শরিফুল হক বলেন, পাহাড় দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণকারীদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।