আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :

‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছি দুর্বার, এখন সময় বাংলাদেশের মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার’এই স্লোগানের মধ্য দিয়ে বর্ণিল আয়োজনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দুই দিনব্যাপী ২০তম জাতীয় সম্মেলন শনিবার সকাল ১০টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শুরু হয়েছে। ১০টার কিছু সময় পর দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

আওয়ামী লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে জমকালো এই জাতীয় সম্মেলনকে ঘিরে ক্ষমতাসীন দলের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। সকাল সাতটা থেকেই ছয় হাজার ৬৫০ জন কাউন্সিলর, এর তিন গুণেরও বেশি ডেলিগেট এবং দেশি-বিদেশি অতিথিরা সম্মেলন স্থলে আসতে থাকেন।

এর আগে শেখ হাসিনা ১০টা ৫ মিনিটে মঞ্চে আসেন। তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানানোর পর দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর শেখ হাসিনা সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

উপস্থিত কাউন্সিলর, ডেলিগেট ও আমন্ত্রিত অতিথিদের অভিবাদন ও শুভেচ্ছা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি এই সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করছি এবং সম্মেলন পরিচালনার জন্য দলের কার্যনির্বাহী কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ এবং উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক অসীম কুমার উকিলকে দায়িত্ব দিয়ে যাচ্ছি।

pm021477110105

তিনি আরো বলেন, ‘আমি আমার বক্তব্য পরবর্তীতে রাখব। আমাদের কিছু অনুষ্ঠান আছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে। পবিত্র ধর্মগ্রন্থ পাঠ করা হবে। শোক প্রস্তাব পাঠ করা হবে। এরপর আমি আমার উদ্বোধনী ভাষণ রাখব। ’

পরে দলের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান নূর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন। এরপর সম্মেলন সংগীত, দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্য পরিবেশন করা হয়

জোহরের নামাজের পর দ্বিতীয় অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে জেলার সাংগঠনিক লিখিত রিপোর্ট উপস্থাপন করা হবে। সন্ধ্যায় হবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এদিকে ক্ষমতাসীন দলের এই জাতীয়  সম্মেলনকে ঘিরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায় কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ১০ হাজার সশস্ত্র নিরাপত্তা কর্মীর পাশাপাশি আছেন সাদা পোশাকেও বিপুল সংখ্যক গোয়েন্দা মোতায়েন করা হয়েছে।

সম্মেলন উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক, প্রবেশমুখ ও ঢাকার বাইরের জেলাগুলো নানা রঙের বাতি আর পোস্টার-ব্যানারে সেজেছে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলনে ৬ হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর অংশ নিচ্ছেন। সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশন হবে দ্বিতীয় দিন রোববার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে। ওই অধিবেশনে নতুন কার্যনির্বাহী সংসদ নির্বাচন করা হবে।