নগরীতে গলায় ফাস খেয়ে গর্মেন্টস কর্মীর আত্নহত্যা

নগরীতে গলায় ফাস খেয়ে গর্মেন্টস কর্মীর আত্নহত্যা।ছবি/এস,এম রেজাউল করিম
নগরীতে গলায় ফাস খেয়ে গর্মেন্টস কর্মীর আত্নহত্যা।ছবি/এস,এম রেজাউল করিম

নিজস্ব প্রতিনিধি:

নগরীর ডবলমুরিং থানাধীন মুনসুরাবাদ এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে এক গার্মেন্টস কর্মীর আত্নহত্যার খবর পাওয়া গেছে। সরজমিনে দেখা গেছে সে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাস খেয়েছেন।

সোমবার সকালে মনসুরাবদের ফেরদৌস মিয়ার কলোনিতে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম মাবিয়া (১৯)। তার পিতার নাম মঞ্জুর মোক্তার হোসেন। তার স্বামী মো.জাবেদ টেকনাফের জাইল্লাপাড়ানিবাসি। জাবেদ রিক্সা চালাত বলে পারিবারিক সত্রে জানা গেছে।

স্থানীয় ও পারিবরিক সূত্র জানায়,মাবিয়ার সাথে জাবেদের বিয়ে হয় দুই থেকে তিন মাস।তিনদিন আগে মাবিয়া তার বড় বোনের বাসায় বেড়াতে গিয়েছিল।তিনদিন পর আজ নিজ ভাড়া বাসায় লোহার দরজা বন্ধ করে মাবিয়া গলায় ফাস দেয়। বদরজা খুলতে না পেরে পুলিশকে খবর দিলে ডবল মুরিং থানার সেকেন্ড অফিসার নূর ইসলাম,এস,আই সালাম ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে। পরে গ্র্যান্ডিং মেশিন দিয়ে দরজা কেটে মাবিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, মনসুরাবদের ফেরদৌস কলোনিতে ফাসির ঘটনা ঘটেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে কর্তব্যরত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দরজা কেটে মাবিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।এ গটণায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছে। তবে আসামিকে এখনো আটক করতে পারেনি পুলিশ।