মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১৪-০২-২০১৭ Time:৩:২৮ অপরাহ্ণ


মহিলা লীগের সম্মেলনে উত্তেজনা, পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি

মহিলা লীগের সম্মেলনে উত্তেজনা, পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি

চট্টগ্রাম অফিস:

নগরীর পাঁচলাইশের কিং অব চিটাগাং কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনস্থলে মহিলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বেগম হাসিনা মহিউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক তপতি সেনগুপ্তার অনুসারীদের দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় উত্তেজনা ও পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

সম্মেলনস্থলে প্রবেশ নিয়ে এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। এ সময় সম্মেলনে প্রবেশ করতে না পারা তপতি সেনগুপ্তার অনুসারীরা সম্মেলনে যোগ দিতে যাওয়া প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মহিলা বিষয়ক সম্পাদক বেগম ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরার গাড়িবহরেও বাধা দেন। এসময় তপতি সেনগুপ্তার কয়েক’শ অনুসারী কমিউনিটি সেন্টারের প্রবেশমুখে অবস্থান নিয়ে বারবার সম্মেলনে প্রবেশ করার চেষ্টা চালায় ।

প্রায় দুই দশক পর মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। ১৯৯৮ সালে সর্বশেষ নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা আতাউর রহমান খান কায়সারের স্ত্রী নীলুফার কায়সারকে সভাপতি এবং তপতী সেনগুপ্তাকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছিল।এরপর আর নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়নি। প্রয়াত নীলুফার কায়সারের ‍অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সংগঠনের দায়িত্ব পালন করছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিন।

জানা গেছে, নগর মহিলা লীগের সভাপতি বেগম হাসিনা মহিউদ্দিনের হাতে সম্মেলনের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। এসময় অন্য পক্ষের হয়ে নেতৃত্ব দেওয়া তপতি সেনগুপ্তা তার অনুসারীদের নিয়ে সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করতে চাইলে বাধা দেয় পুলিশ। সম্মেলনে প্রবেশ করতে না পেরে তারা এ সময় পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

কাউন্সিলিং কার্ড না থাকায় তাদের সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি বলে দাবি করছে পুলিশ।পুলিশ জানায় আমরা যাদের কাউন্সিলিং কার্ড আছে তাদের সম্মেলনে প্রবেশ করতে দিয়েছি। কিন্তু অনেকের কার্ড না থাকা সত্বেও সম্মেলনে প্রবেশ করতে চায়। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে আমরা তাদের সরিয়ে দিই।  অন্যদিকে নেতাকর্মীদের কাউকেই সম্মেলনে প্রবেশ করার কাউন্সিলিং কার্ড দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তপতি সেনগুপ্তা। তার অভিয়োগ শুধুমাত্র কমিটিতে যারা আছেন তার পক্ষের তারাই কেবল কার্ড পেয়েছেন। অন্য কয়েকশ নেতাকর্মীর কার্ড না থাকার অজুহাতে সম্মেলনেস্থলে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না পুলিশ।