মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১৮-০৩-২০১৮ Time:৬:০০ অপরাহ্ণ


বেসরকারি মেডিক্যালে শিক্ষার গুণগত মান বজায় রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্ক: বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলোকে শিক্ষার গুণগত মান বজায় রেখে উপযুক্ত চিকিৎক গড়ে তুলতে যথাযথ পাঠ্যক্রম অনুসরণের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার সকালে রাজধানীর ফার্মগেটে বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ সোসাইটি অব ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন এর তৃতীয় এবং বাংলাদেশ ক্রিটিক্যাল কেয়ার নার্সিং এর প্রথম আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি খাতেও মেডিক্যাল কলেজ হচ্ছে। তবে সেক্ষেত্রে তাদের শিক্ষার মানটা যথাযথ আছে কি না সেদিকে নজর দিতে হবে। কারিকুলামগুলো ঠিকমতো আছে কি না-সেই দিকেও একটু বিশেষভাবে নজর দেওয়া দরকার।’

চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষা এবং প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসা ক্ষেত্রে সিঙ্গাপুরের দৃষ্টান্ত তুলে ধরে বলেন, আমাদের চিকিৎসকদের আরো উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণের জন্য আমরা বিদেশে পাঠাতে চাই।

তিনি বলেন, আমার এটাই প্রশ্ন যে, যদি অন্যদেশ পারে তবে, আমরা পারবো না কেন? কারণ, আমাদের মেধা বা জ্ঞান কোনটিরই অভাব নেই। তবে, সুযোগের অভাব ছিল। যেটি আমরা এখন করে দিচ্ছি।

শিক্ষার মানের প্রতি নজর দেওয়ার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের বই লেখার প্রতিও মনোনিবেশ করার আহ্বান জানান।

চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, মেডিকেল সাইন্স এখন অনেক এগিয়ে যাচ্ছে। নামি-দামি বই আসছে। কিন্তু এসব বই এত দামি সবার পক্ষে তো কেনা সম্ভব নয়! কাজেই আমার মনে হয় আপনাদের বিভিন্ন অ্যাসোসিয়েশন আছে এবং মন্ত্রণালয় থেকেও এটার উদ্যোগ নেওয়া উচিত। আর প্রত্যেকটি মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য লাইব্রেরিটা একান্তভাবে প্রয়োজন।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় নতুন নতুন রোগের পাশাপাশি নতুন নতুন যে প্রযুক্তি আবিস্কার হচ্ছে তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার জন্য চিকিৎসক সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।

দেশে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দেশের ইতিহাসে প্রথম ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠা করি। সম্প্রতি রাজশাহী ও চট্টগ্রামে নতুন দুটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় করা হচ্ছে। সিলেটেও আরো একটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। পর্যায়ক্রমে প্রত্যেকটি বিভাগীয় শহরে একটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় করবে সরকার।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সদ্য স্বাধীন, যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠন প্রক্রিয়ায় দেশের স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্ব দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুর ইচ্ছায় বাংলাদেশের সংবিধানের ১৮(১) অনুচ্ছেদে ‘জনগণের পুষ্টির স্তর উন্নয়ন ও জনস্বাস্থ্যের উন্নয়ন সাধনকে রাষ্ট্র অন্যতম প্রাথমিক কর্তব্য বলিয়া গণ্য করিবে’ বাক্যটি যুক্ত করা হয়।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সংসদ সদস্য, সরকারের পদস্থ কর্মকর্তা, চিকিৎসক সমাজের প্রতিনিধি ও আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন।




মন্ত্রিসভায় মানসিক স্বাস্থ্য আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন
চুক্তি অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা ও বৃদ্ধদের পাঁচ বছরের জন্য ভিসা দেবে ভারত
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলা ছাত্রলীগ করেনি : কাদের
চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন এরশাদ
বাংলাদেশের মেয়ে ক্রিকেটাররা উন্মোচিত করেছে নতুন দিগন্ত
যে ওয়াদা দিয়েছি নিশ্চয় তা পূরণ করবো : শেখ হাসিনা
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
ঢাকায় যাচ্ছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং
প্রধানমন্ত্রীর সাথে পাবনায় যাচ্ছেন রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী