মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৯-০৪-২০১৮ Time:৭:১৭ অপরাহ্ণ


কোটা ব্যবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্ক: জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে কোটা ব্যবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীল সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষে এ নির্দেশ দেন তিনি।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন ‘আজ কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি, কিছুটা অনির্ধারিত আলোচনা হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে, দেখে এটা অবহিত করবে।’

তিনি বলেন, কোটা নিয়ে আসলে কোনো সমস্যা নেই। এখন যে কোটাব্যবস্থা রয়েছে সেখানে মেধা কোটা ৪৫ শতাংশ, মুক্তিযোদ্ধা কোটা ৩০, নারী কোটা ১০, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কোটা ৫, ক্ষেত্রবিশেষে জেলা কোটা ১০ এবং ক্ষেত্রবিশেষে প্রতিবন্ধী কোটা এক শতাংশ।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরো বলেন, ‘মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত দিয়েছিল, মুক্তিযোদ্ধা বা অন্যান্য কোটা যদি পূরণ করা সম্ভব না হয় তবে তা মেধাতালিকার শীর্ষে অবস্থানকারী প্রার্থীদের দিয়ে পূরণ করতে হবে। সেটা পূরণ করা হয়েছে।’

এক্ষেত্রে ৩৩তম বিসিএসে মেধাকোটায় পূর্ণ হয়েছে ৭৭ দশমিক ৪০ শতাংশ ও ৩৫তম বিসিএসে ৬৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ মেধা তালিকা থেকে এসেছে। আর ৩৬তম বিসিএসে ৭০ দশমিক ৩৮ শতাংশ মেধাকোটায় নিয়োগ পেয়েছেন বলে জানান তিনি।

শফিউল আলম বলেন, ‘কোটার মাধ্যমে মেধা অবহেলিত হয়নি। কোটার ক্ষেত্রেও যারা মেধাতালিকায় ভালো তারা আসছেন। এমন না যে মেধাতালিকায় যারা আছেন তারা অবহেলিত আছেন, পেছনে পড়ে যাচ্ছেন। কোটার দ্বারা কারও মেধা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।’

বিভিন্ন কোটায় প্রার্থী পাওয়া যায় না, তাহলে কোটা সংস্কারে সমস্যা কোথায় জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘যেটা মোডিফাই করা হয়েছে অর্থাৎ পদ পাওয়া না গেলে মেধাতালিকার শীর্ষে যারা আছেন তাদের দিয়ে পূরণ করা হবে। এটাই তো একটা সংস্কার।’

কোট সংস্কারের বিষয়ে আজকের মন্ত্রিসভা বৈঠকে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে শফিউল আলম বলেন, না আজ কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিষয় আছে। অনির্ধারিত আলোচনা তো এরকম কিছু হয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় হলো স্টেক হোল্ডার। তারা এটা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবে। দেখে অবহিত করবে।

কোটায় প্রার্থী পাওয়া না গেলে মেধাতালিকা থেকে তা পূরণের সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভা দিলেও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত ব্যাখ্যায় জানিয়েছে, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির পদের ক্ষেত্রে কোনো কোটা পূরণ না হলে অন্যান্য কোটা দিয়ে পূরণ করতে হবে। তারপরই নতুন করে এ আন্দোলন শুরু হয়েছে। এমন প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের আদেশটি আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখব।’

সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে বেশ কিছু দিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে আসছে শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থীরা। এরপর রোববার তারা পদযাত্রার কর্মসূচি দিয়ে শাহবাগে অবস্থান নেয়। বেলা ৩টার দিকে পাবলিক লাইব্রেরির সামনে সমবেত হয় আন্দোলনকারীরা। তারা শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। রাতে পুলিশ লাঠিপেটা ও রাবার বুলেট-কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে সেখান থেকে তাদের সরিয়ে দেয়।

এরপর বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। রাতভর ক্যাম্পাসে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। সোমবারও তাদের বিক্ষোভ সমাবেশ অব্যাহত থাকে।




মন্ত্রিসভায় মানসিক স্বাস্থ্য আইনের খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন
চুক্তি অনুযায়ী মুক্তিযোদ্ধা ও বৃদ্ধদের পাঁচ বছরের জন্য ভিসা দেবে ভারত
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলা ছাত্রলীগ করেনি : কাদের
চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন এরশাদ
বাংলাদেশের মেয়ে ক্রিকেটাররা উন্মোচিত করেছে নতুন দিগন্ত
যে ওয়াদা দিয়েছি নিশ্চয় তা পূরণ করবো : শেখ হাসিনা
রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
ঢাকায় যাচ্ছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং
প্রধানমন্ত্রীর সাথে পাবনায় যাচ্ছেন রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী