মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৬-১১-২০১৪ Time:৪:৪৪ অপরাহ্ণ


c-and-a-1নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে আসার আগেই নিয়ন্ত্রক সংস্থার শর্ত ভঙ্গের জালে আটকা পড়ছে সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল। সম্প্রতি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের আইপিওর অর্থ সংগ্রহের ক্ষেত্রে আরোপিত শর্তানুযায়ী, সংগৃহীত অর্থের এক-তৃতীয়াংশের বেশি কোনো ইস্যুয়ার ঋণ পরিশোধে ব্যবহার করতে পারবে না। এক্ষেত্রে উল্লিখিত কোম্পানিটি বিএসইসির নির্দেশনা ভঙ্গ করছে বলে জানান বাজার সংশ্লিষ্টরা। কোম্পানিটি আইপিও অর্থের তিনভাগের দুইভাগই ঋণ পরিশোধে ব্যবহার করবে। তাই অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকাএ কোম্পানির ভবিষ্যৎ নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে সংশ্লিষ্টরা।
জানা যায়, পুঁজিবাজার থেকে সংগৃহীত অর্থের ৬৮.৬১ শতাংশ বা দুই-তৃতীয়াংশই ঋণ পরিশোধে ব্যয় করবে সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসব কোম্পানি ঋণের দায়ভার মেটানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাজারে আসে। কিন্তু পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহের পর এসব কোম্পানি ঋণের দায়ভার বিনিয়োগকারীদের কাঁধে চাপাতে আবারো ব্যাংকমুখী হয়ে পড়ে। ফলশ্রুতিতে দেখা যায়, তালিকাভুক্তির পরও এসব কোম্পানির ঋণের দায়ভার বিনিয়োগকারীদের ঘাড়েই বর্তায়। এক্ষেত্রে গত বছরে তালিকাভুক্ত কোম্পানির মধ্যে সেন্ট্রাল ফার্মা, গোল্ডেন হার্ভেস্ট, ফ্যামিলিটেক্স ও বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেমসহ কতিপয় কোম্পানির কথা তারা উল্রেখ করেন।
বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কোম্পানিটি আইপিওর দুই-তৃতীয়াংশ অর্থই যদি ঋণ পরিশোধে ব্যয় করে তাহলে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বিনিয়োকারীরা। কেননা অতীতে যেসব কোম্পানি বাজার থেকে ঋণ পরিশোধের উদ্দ্যেশে অর্থ সংগ্রহ করেছে ঐসব কোম্পানির সিংহভাগই বর্তমানে সর্বনিম্ন দরে অবস্থান করছে। পাশাপাশি ডিভিডেন্ড ঘোষণায়ও ইতিবাচক প্রভাব পড়েনি এসব কোম্পানির।
প্রাপ্ত তথ্যমতে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৮তম কমিশন সভায় আইপিও অনুমোদন পায় সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইল। কোম্পানিটি ১০ টাকা মূল্যমানের ৪ কোটি ৫০ লাখ সাধারণ শেয়ার ছেড়ে বাজার থেকে ৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। সেদিক থেকেও কোম্পানিটি বড় আকারের শেয়ার ছাড়ছে পুঁজিবাজারে।
প্রসপেক্টাস সূত্রে জানা যায়, সংগৃহীত টাকার ৩০ কোটি ৮৭ লাখ ৬২ হাজর ২৫৪ টাকা কোম্পানিটি ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক, আগ্রাবাদ শাখার ঋণ পরিশোধ করবে। যা প্রতিষ্ঠানটির সংগৃহীত টাকার প্রায় ৬৮.৬১ শতাংশ। এদিকে প্রায় ৮ কোটি ৫৪ লাখ ব্যয় করা হবে ৪তলা বিল্ডিং নির্মাণে এবং প্রায় ৩ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে মেশিনারিজ ক্রয়ে। এ ছাড়াও বাকি ১ কোটি ৮০ লাখ ৮৯ হাজার ৭৫০ টাকা কোম্পানিটি আইপিও সংক্রান্ত খাতে ব্যয় করবে। আইপিও খাতে এতো অর্থ খরচ নিয়েও কোম্পানিটির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠছে। তাদের মতে, তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলো বিনিয়োগকারীদের অর্থ নিজেদের স্বার্থ হাসিলে আইপিওর মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে। কোম্পানি যদি তার ব্যবসা সম্প্রসারণ ও বিপণন বাড়ানোর জন্য অর্থ সংগ্রহ করে, তবে তা বাজার এবং বিনিয়োগকারীদের জন্য ইতিবাচক হয়। কিন্তু এ কোম্পানিটি সংগৃহীত টাকার প্রায় দুই-তৃতীয়াংশই ঋণ পরিশোধে কাজে লাগাবে। অন্যদিকে আইপিও খরচ বাবদ অদৃশ্য খাতে বড় অঙ্কের খরচ করছে কোম্পানিটি। ফলে ভবিষ্যতে কোম্পানিটির অবস্থা যে কেমন হবে তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কোম্পানির চেয়্যারম্যান গাজী গোলাম জাকারিয়া জ্যোতি কোম্পানির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) মো. জামাল উদ্দিন পাটোয়ারির সঙ্গে কথা বলতে বলেন। মো. জামাল উদ্দিনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে গণমাধ্যমের কর্মী পরিচয় দেয়ার পর তিনি গণমাধ্যমে কর্মীদের সঙ্গে কথা বলতে ইচ্ছুক নন বলে জানান। এই কথা বলেই তিনি অভদ্রভাবে টেলিফোনের লাইনটি কেটে দেন। এরপর তার সাখে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি আর ফোন রিসিভ করেননি।
এরপর কোম্পানিটির চেয়ারম্যান এবং অন্য কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলার জন্য বহুবার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু কোন কর্মকর্তার সঙ্গেই কথা বলা যায়নি। সবার মধ্যেই গণমাধ্যমকে এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। এতে কোম্পানিরি বিরুদ্ধে নানা তথ্য গোপনের রহস্য আরো ঘনীভূত হয়।

পাস্তুরিত দুধ নিয়ে কারসাজি আছে কি না দেখা উচিত: প্রধানমন্ত্রী» « চান্দগাঁওয়ে ডোমখালী খালে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু» « পাকিস্তানে সামরিক বিমান বিধ্বস্তে নিহত ১৭, আহত ১২» « র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ধর্ষণকারীর নিহত» « গুজব রটনাকারীদের ধরিয়ে দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর» « লামায় বন্যা ও পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ» « কক্সবাজার শহর রক্ষায় ঝাউবন করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর» « দেশের সব উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর» « সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের স্বাস্থ্যের আশানুরূপ উন্নতি» « প্রাইভেটকারে করে এসে ছিনতাইয়ের চেষ্টা, ৩ জনকে গণপিটুনি» «