মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৯-০৬-২০১৮ Time:২:২০ অপরাহ্ণ


ক্রীড়া ডেস্ক  ::    বিশ্বখ্যাত খেলাধুলার সামগ্রী প্রস্তুতকারক কোম্পানি নাইকি ইরানি ফুটবল দলকে রাশিয়া বিশ্বকাপে জুতা সরবরাহ করতে অস্বীকৃতি জানানোয় এটির সমালোচনা করেছেন দলটির ম্যানেজার কার্লোস কুয়েইরোজ।

ইরানের সঙ্গে ছয় জাতির পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে গিয়ে ট্রাম্প প্রশাসন যে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তার প্রেক্ষিতেই নাইকি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। খবর আরটির। ভয়েজ অব আমেরিকার পার্সিয়ান সার্ভিস জানাচ্ছে, রাশিয়া বিশ্বকাপে ইরানি খেলোয়াড়দের জুতা দিতে অস্বীকৃতির কারণ হিসেবে নাইকি হোয়াইট হাউজের নতুন নিষেধাজ্ঞাকেই যুক্তি হিসেবে দাঁড় করাচ্ছে।

মস্কোর বাইরে একটি ট্রেনিং সেশনের সময় ম্যানেজার কুয়েইরোজ বলেন, খেলোয়াড়রা তাদের সামগ্রী ব্যবহারে অভ্যস্ত হয়ে গেছে এবং এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ খেলার এক সপ্তাহ আগে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন ঠিক না। তিনি বলেন, এই ইস্যুতে আমাদেরকে সাহায্য করতে ফিফার সাহায্য চাচ্ছি।

এর আগে নাইকি এক বিবৃতি জানায়, হোয়াইট হাউজের এই অবরোধের অর্থ হলো একটি মার্কিন কোম্পানি হিসেবে আমরা এই মুহূর্তে ইরানের জাতীয় দলকে জুতা সরবরাহ করতে পারি না। টিম মেল্লি হিসেবে পরিচিত ইরানি ফুটবল দলকে জার্সি সরবরাহ করে অ্যাডিডাস।

ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারকদের মধ্যে জার্মান এই কোম্পানিটিকে নাইকির মূল প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করা হয়। যেকোনও ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারক কোম্পানির জুতাই খেলোয়াড়রা ব্যবহার করতে পারেন। তবে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের খেলোয়াড়রা নাইকির জুতা ব্যবহার করতে পারবেন না। আর এই তালিকায় রয়েছে সুইডিশ-বংশোদ্ভূত ইরানি স্ট্রাইকার সামান গোডডোস।

অস্টারসান্ডস এফকে-র এই খেলোয়াড়ের স্পন্সর নাইকি, কিন্তু এখন তাকে অন্য ব্র্যান্ডের জুতা পরতে হবে। আগামী ১৫ জুন রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবুর্গ স্টেডিয়ামে মরক্কোর বিপক্ষে তাদের প্রথম ম্যাচ খেলবে ইরান। ২০ জুন কাজান অ্যারেনাতে ২০১০ এর বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন স্পেনের মুখোমুখি হবে তারা। আর তৃতীয় ম্যাচে সারানঙ্কে ২৫ জুন পর্তুগালের বিপক্ষে নামবে।

মর্নিংসান/এসএ