মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১০-০৭-২০১৮ Time:১২:৪৮ অপরাহ্ণ


আন্তর্জাতিক ডেস্ক  ::    দ্বিগুণ নির্বাহী ক্ষমতা নিয়ে আরও পাঁচ বছরের জন্য তুরস্কের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নতুন মেয়াদ শুরু করেছেন রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় প্রেসিডেন্ট প্যালেসে তার এ অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

তুরস্কের পার্লামেন্ট দপ্তরে শপথ নেয়ার পর রাজধানী আঙ্কারায় প্রেসিডেন্টের বাসভবনে উপস্থিত আন্তর্জাতিক নেতা ও কয়েকহাজার অতিথিদের সামনে ভাষণ দেন এরদোয়ান।

এরদোগানের অভিষেক অনুষ্ঠানে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ, ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো এবং কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানিসহ বহু বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে ৬৪ বছর বয়সী এ নেতা বলেন, আমরা, তুর্কি হিসেবে ও তুরস্কের লোক হিসেবে আজ থেকে নতুনভাবে শুরু করছি। আমরা ওই পদ্ধতিকে পেছনে ফেলে আসছি যা অতীতে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিশৃঙ্খলা তৈরি করে আমাদের দেশের অনেক ক্ষতি করেছে। ভাষণে তিনি ‘শক্তিশালী সরকার ও শক্তিশালী তুরস্ক’গড়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

গতকাল সোমবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার কয়েকঘণ্টার মধ্যে এরদোয়ান নিজের জামাতা বেরাক আলবাইরাককে তুরস্কের অর্থমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এরদোয়ানের জয়ের মধ্য দিয়ে তুরস্কের ক্ষমতার ভারসাম্যে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। জয়ের পরপরই তুরস্কে পার্লামেন্ট পদ্ধতির শাসনব্যস্থা থেকে প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির শাসনব্যবস্থা প্রবর্তিত হয়েছে।

তুরস্কের নতুন রাষ্ট্রনীতি অবলম্বনে, এখন থেকে রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকার প্রধান উভয় দায়িত্বই পালন করবেন প্রেসিডেন্ট। তিনি পার্লামেন্টের অনুমোদন ছাড়াই মন্ত্রিসভা গঠন করবেন, মন্ত্রণালয়গুলোর কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করবেন এবং সরকারি কর্মকর্তাদের পরিবর্তন করতে পারবেন। এরদোয়ান তার্কিশ এয়ারলাইন্সের সাবেক নির্বাহী ফোয়াত ওকতাইকে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।

সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান হুলুসে আকাসকে নতুন প্রতিরক্ষামন্ত্রী বানিয়েছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কভুসগলু অপরিবর্তিত আছেন। মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়েছেন সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী মেহমেত সিমসেক, তাকে বাদ দিয়ে জামাতা আলবাইরাককে নতুন অর্থমন্ত্রী করার পরই তুরস্কের অর্থবাজারে একটি ধাক্কা লেগেছে, নেমে গেছে তুর্কি মুদ্রা লিরার মান।

এরদোগানের নতুন সরকারে ১৬ জন মন্ত্রী স্থান পেয়েছেন। বিগত সরকারে তার মন্ত্রিপরিষদ ছিল ২৬ জনের। আইনমন্ত্রী হয়েছেন আবদুল্লাহ মিথ গুল, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী মেহমেত কাসাপোগলো, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সয়লো, পর্যটন ও সংস্কৃতিমন্ত্রী মেহমেত এরসুই, শিক্ষামন্ত্রী জিয়া সেলজুক, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফাহরেততিন কুচসা।
মর্নিংসান/এসএ