মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১০-০৭-২০১৮ Time:৬:০৮ অপরাহ্ণ


ফাইনালের লড়াইয়ে আজ মাঠে নামছে ফ্রান্স-বেলজিয়াম

ক্রীড়া ডেস্ক: শেষ হয়ে আসছে বিশ্বকাপ ফুটবলের ২১তম আসর। বিদায় নিয়েছে ২৮টি দল। বাকি রয়েছে মাত্র ৪টি দল।

স্বপ্নের ফাইনালের মঞ্চে ওঠার লড়াই শুরু হচ্ছে আজ থেকে। রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে আজ মুখোমুখি হবে ইউরোপের দুই গতিময় ফুটবলের দল ফ্রান্স ও বেলজিয়াম। রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১২টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

ফ্রান্স এরআগে একবার শিরোপার স্বাদ পেলেও বেলজিয়ামের কাছে শিরোপা এখনো অধরাই রয়ে গেছে। তাই শিরোপার লড়াইয়ে তারা এবার লড়ে যাবে প্রাণপণে।

১৯৩০ থেকে শুরু করে বিশ্বকাপের ১৫ আসরে অংশ নিয়ে ছয়বার সেমিফাইনালে উঠেছে ফ্রান্স। এর মধ্যে ১৯৯৮ বাদে অন্য চারবার সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে তারা। যার শুরুটা হয়েছিল ১৯৫৮ সালে। সেবার পেলের ব্রাজিলের কাছে ৫-২ গোলে হেরে সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছিল। এরপর ১৯৮২ ও ১৯৮৬ সালে দুইবার সেমিফাইনালে উঠেছিল তারা। ১৯৯৮ সালে ঘরের মাঠে প্রথম শিরোপা জয়ের স্বাদ নিয়েছিল ফরাসিরা। এরপর ২০০৬ সালে ফাইনালে ওঠেও শিরোপা ছুঁতে পারেনি ফরাসিরা। তাই ২০ বছর ধরে শিরোপা অধরাই রয়ে গেছে তাদের কাছে।

তবে এবারের ফ্রান্স দলটি তারকায় ভরপুর। ফ্রান্সের অ্যান্তনিও গ্রিজমান, অভিলার জিরোড, কালিয়ান এমবাপ্পে, রাফায়েল ভারানের মতো তারকায় ভরপুর দলটি। যারা যে কোন মুহূর্তে প্রতিপক্ষকে চুরমার করে দিতে পারেন। আর সেই সাথে রয়েছে ১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ও কোচ দিদিয়ের দেশম।

তাই ফরাসিদের ভরসা, এবার পারবে কী সেমিফাইনালের বাধা পার করতে? তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠতে এবং দ্বিতীয় শিরোপার স্বাদ নিতে?

অন্যদিকে ফ্রান্সের চেয়ে বেশ পিছিয়ে বেলজিয়াম। বিশ্বকাপে ১২বার অংশ নিয়ে তাদের সেরা সাফল্য সেমিফাইনাল। ১৯৮৬ বিশ্বকাপের শেষ ষোলোতে তারা পেয়েছিল সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নকে। তাদের ৪-৩ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে। এরপর কোয়ার্টার ফাইনালে পায় স্পেনকে। সেখানে টাইব্রেকারে স্প্যানিশদের হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠেছিল। সেমিফাইনালে তারা সেবার পেয়েছিল দিয়েগো ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনাকে। দিয়েগো ম্যারাডোনা জোড়া গোল করে সেবার বেলজিয়ামদের সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় করে দিয়েছিল। সেমিফাইনালেই থেমে যায় তাদের শিরোপা জয়ের মিশন। তবে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে তারা ফ্রান্সের কাছে ৪-২ গোলে হার মেনে চতুর্থ হয়ে বিদায় নেয়।

৩২ বছর পর আবার সেমিফাইনালে এসেছে বেলজিয়াম। এবার সেমিফাইনালে তারা পেয়েছে ফ্রান্সকে। দ্রিস মার্টেন্স, ইডেন হ্যাজার্ড, ভিনসেন্ট কোম্পানি, রোমেলু লুকাকু, কেভিন ডি ব্রুইনি, থমাস ভারমালেন ও ফেলিয়ানিদের সমন্বয়ে সোনালি প্রজন্মে পরিণত হয়েছে তারা। তাদের ঘিরে বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে বেলজিয়ামের মানুষ।

কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলের মতো দলকে হারিয়ে রীতিমতো উড়ছে বেলজিয়াম। তাদের রক্ষণভাগ, মিডফিল্ড ও আক্রমণভাগ বেশ শক্তিশালী। এবারের আসরে সবচেয়ে বেশি গোল তাদের (১৪টি)।

এ পর্যন্ত ৭৩ বার একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে দল দুটি। ১৯০৪ সাল থেকে শুরু এই দুই দেশের লড়াই। এই ৭৩ বারের মধ্যে ৩০ জয় নিয়ে এগিয়ে আছে বেলজিয়াম। ফ্রান্সের জয় ২৪। আর বাকি ১৯টি ম্যাচ শেষ হয়েছে অমীমাংসিত ভাবে। তবে বিশ্বকাপে মাত্র দুইবার মুখোমুখি হয়েছে ফ্রান্স-বেলজিয়াম। ১৯৩৮ ও ১৯৮৬ বিশ্বকাপের সে দুই ম্যাচেই জয় পেয়েছে ফ্রান্স।