মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১২-০৭-২০১৮ Time:৫:৪২ অপরাহ্ণ


স্বপ্নের ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক: রাশিয়ার লুঝনিকি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠল ক্রোয়েশিয়া।

নির্ধারিত সময় ৯০ মিনিটের খেলা ১-১ গোলে ড্র থাকার পর খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এই অতিরিক্ত সময়েই মারিও মানজুকিচের অসাধারণ এক গোলে ইংল্যান্ডকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছে গেল ক্রোয়েশিয়া।

১০৯ মিনিটে অসাধারণ গোলটি করলেন মারিও মানজুকিচ। ইংল্যান্ডের বক্সের মধ্য থেকেই বলটা প্রথমে ফিরে আসে। লাফ দিয়ে আলতো করে হেডে আবারও ইংল্যান্ডের জালের সামনে বলটা ঠেলে দেন ইভান পেরিসিচ। জন স্টোনকে পেছনে ফেলে বলটির নিয়ন্ত্রণ নিলেন মারিও মানজুকিচ। গোলরক্ষক পিকফোর্ডও বলের কাছে আর পৌঁছাতে পারলেন না। তার আগেই মানজুকিচ বাম পায়ের অসাধারণ এক শট নিলেন। পিকফোর্ডকে ফাঁকি দিয়ে বল জড়িয়ে গেলো ইংল্যান্ডের জালে।

তবে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটে এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। ডেলে আলিকে ডি বক্সের বাইরে ফাউল করায় ২০ গজ দূর থেকে ফ্রি-কিক পায় ইংল্যান্ড। কিরিন ট্রিপিয়ারের ডানপায়ের বাঁকানো শটে কিছু করার ছিল না ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষকের। তার শট খুঁজে নেয় জাল। জাতীয় দলের হয়ে নিজের প্রথম গোল করে শুরুতেই লায়ন্সদের ‍উল্লাসে ভাসান ট্রিপিয়ার।

এরপর গোল দেয়ার একাধিক সুযোগ সৃষ্টি করেও ব্যর্থ হয় ক্রোয়েশিয়া। এভাবে প্রথম ৪৫ মিনিট ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকে ইংল্যান্ড।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে গোল শোধ করে দেন ক্রোয়েশিয়ার ইভান পেরিসিচ। ফলে অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময়েই নিয়ে যাওয়া হয় দুই দলের মধ্যকার সেমিফাইনাল ম্যাচটি।

ম্যাচের ৬৮তম মিনিটে আর পেরেসিচের লম্বা পায়ের ছোঁয়া থেকে বাচতে পারেনি ‘৬৬র বিশ্বকাপজয়ীরা। ডি বক্সের বেশ বাইরে থেকে সিমে ভ্রাসালকোর ক্রসে ইংলিশ ডিফেন্ডার ওয়াকারের মাথার উপর পা তুলে ডান পাশের বার দিয়ে বল জালে জড়ান পেরেসিচ।

এরপর আর কোন পক্ষই গোল করতে না পারায় খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। আর সেই অতিরিক্ত সময়েই গোল করেই ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেন ক্রোয়েশিয়া।

পুরো ম্যাচেই পরিসংখ্যানের নিজেদের আধিপত্য বজায় রাখে ক্রোয়েশিয়া। বল দখলে ইংল্যান্ডের ৪৫ শতাংশের বিপরীতে ক্রোয়েশিয়ার ছিল ৫৫ শতাংশ। গোলমুখে ইংল্যান্ডের ৮টি শটের বিপরীতে তারা নেয় মোট ১৭টি শট।