মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১৬-০৭-২০১৮ Time:৫:৪২ অপরাহ্ণ


লুঝনিকিতে ইতিহাস রচিত হলো না ক্রোয়েটদের

ক্রীড়া ডেস্ক: ইতিহাস গড়া হলো না ক্রোয়েশিয়ার। ফাইনালের মঞ্চে ফরাসিদের ৪-২ গোলের ব্যবধানে হেরে রানার্সআপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হলো তাদের।

রোববার দুপুর থেকে মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে এসে আনন্দ-উৎসব করে সময় কাটিয়েছে। আর শেষটা ভগ্ন হৃদয়েই শেষ করতে হলো। প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে ইতিহাস গড়ার যে প্রত্যাশা ছিল তা ভেঙ্গে চুরমার করে দিয়েছে ফ্রান্স।

আসলে ভাগ্যও তাদের বিপক্ষে ছিল। তাইতো আত্মঘাতী গোলে ক্রোয়েশিয়া পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফিরলেও আবার পেনাল্টি গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় ফ্রান্স। ম্যাচে ফিরতে মরিয়া ক্রোয়েশিয়া অতি আক্রমনে গিয়ে খেসারত দেয় ৪-১ গোলে পিছিয়ে গিয়ে। ৫৯ ও ৬৫ মিনিটে পল পগবা ও এমবাপের গোল দুটিই ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ করে দেয়।

ফ্রান্সের গোলরক্ষক হুগো লরিসের ভুলে ক্রোয়েশিয়া ৬৯ মনিটে ব্যবধান ৪-২ করলেও পরে আর গোল করতে পারেনি। ৪-২ গোলে হেরে বিশ্বজয়ের স্বপ্নভঙ্গ হয় ১৯৯১ সালে যুগোস্লোভিয়া থেকে স্বাধীন হওয়া ছোট্ট দেশটির।

ফ্রান্স জিতল দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। কাঁদল লুকা মড্রিচ, রকিটিচরা। যে ক্রন্দন আর হাহাকার মস্কো ছাড়িয়ে বুক ভারি করে তুলল দুনিয়াময় ক্রোয়েশিয়ার ভক্তদেরও। পুরো মস্কো ছিল লাল-সাদার সমুদ্র। ফ্রান্সের সমর্থক তুলনামূলক কমই ছিল। কিন্তু লাল-সাদার সমুদ্রের ঢল স্টেডিয়াম ছাড়ল কান্নায়। হৃদয়বিদারক এক দৃশ্য!

আবারও অপেক্ষায় থাকতে হবে চার বছরের। দেখা হবে কাতার বিশ্বকাপ ২০২২-এ।