মর্নিংসান২৪ডটকম Date:১৪-১০-২০১৮ Time:১১:১১ পূর্বাহ্ণ


চট্টগ্রামনিউজ  ::      চট্টগ্রামে পাহাড় ও দেয়াল ধসে চারজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে তিনজন একই পরিবারের সদস্য। গতকাল শনিবার গভীর রাতে বন্দরনগরীর আকবর শাহ থানার পূর্ব ফিরোজ শাহ কলোনির পাহাড় ধসে একই পরিবারের তিনজন নিহত হন। আর বায়েজিদ থানার রহমাননগর এলাকায় দেয়াল ধসে একজন নিহত হয়েছেন।

প্রবল বৃষ্টিতে পাহাড়ের পাদদেশে দুটি বাড়ি ধসে পড়ে। এতে নূর জাহান, তাঁর মেয়ে নূর বানু ও নূর জাহানের মা জহুরা খাতুন মারা যান। নূর জাহান আর নূর বানুর লাশ ভোরেই উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ সকাল সাড়ে ৮টায় জহুরা খাতুনের লাশ উদ্ধার করা হয়। জহুরা লক্ষ্মীপুর থেকে চট্টগ্রামে মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন। নূর জাহানের স্বামীর নাম নূর মোহাম্মদ। তাঁদের এক ছেলে ও পাঁচ মেয়ে। নূর বানু সবার ছোট। তার বয়স আড়াই বছর। সবার বড় মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে।

নিহতদের প্রত্যেককে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে সহায়তা করা হয়েছে বলে জানান চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা গত কয়েক দিন ধরেই পাহাড় থেকে লোকজনকে সরিয়ে নিচ্ছিলাম। মাইকিং করা হয়েছে। পুলিশ দিয়ে তাদের সরানো হয়েছে।

তবু কেউ কেউ জোর করে রয়ে গেছে। পাহাড় কেটে বসতি স্থাপন করার জন্য এলাকার প্রভাবশালীরা দায়ী। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ স্থানীয়রা জানান, ওই ফিরোজ শাহ কলোনির পাহাড়টি কনকর্ড গ্রুপের নিয়ন্ত্রণাধীন। তাঁরাও চেষ্টা করেছেন লোকজনকে সরিয়ে নিতে। কিন্তু অনেকেই বাড়ি ছেড়ে যেতে চাননি।

এ ছাড়া স্থানীয়রা পাহাড় কেটে অবৈধ বসতি স্থাপন করার জন্য স্থানীয় কাউন্সিলর জহিরুল ইসলামকে দায়ী করেছেন। তবে কাউন্সিলর এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
মর্নিংসান/এসএ