মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৮-১১-২০১৮ Time:১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ


নিউজ ডেস্ক  ::      পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আগামীবার ক্ষমতায় এলে পরের পাঁচ বছর দুই কোটি লোকের কর্মসংস্থান হবে। চলতি অর্থবছরে সোয়া ৮ শতাংশের কম মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হবে না।

বুধবার সন্ধ্যায় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, ‘সব প্রকল্পই রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আমরা জনগণের জন্য কাজ করি। এত প্রকল্প করা হচ্ছে যেন, আমাদের ভোট না দিতে ভোটারদের হাত কাঁপবে।’ বুধবার ৩০ হাজার ২৩৪ কোটি টাকার ২৮টি প্রকল্প পাস করা হয়েছে।

গত রোববার রেকর্ড ৩৯টি প্রকল্প পাসের তিন দিন পরেই আজ এসব প্রকল্প পাস করা হয়। এ নিয়ে গত ৩ মাস ৭ দিনে সব মিলিয়ে ১৪ টি একনেক সভায় মোট ২৩৬টি প্রকল্প পাস হয়েছে। এসব প্রকল্পে মোট খরচ হবে ২ লাখ ৭৩ হাজার ৫৫২ কোটি টাকা।

শেরেবাংলা নগরের এনইসির সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একনেক সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘বুধবার একনেক সভার পর আর কোনো একনেক সভা হবে না, এটা বলতে পারব না।

আমি কতটা সময় দিতে পারব, সেটাও বিবেচনা করতে হবে। নির্বাচনের জন্য নিজের এলাকায় বেশি সময় দিতে হবে।’ তবে তিনি বলেন, নির্বাচনী আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক, এমন কিছুই করা হবে না। একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর অন্যতম হলো, র‌্যাবের সক্ষমতা বৃদ্ধি করা; রোহিঙ্গাদের জন্য ইমারজেন্সি মাল্টি-সেক্টর রোহিঙ্গা ক্রাইসিস রেসপন্স; নেত্রকোনায় শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন; সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণ (প্রথম পর্যায়); জয়িতা ফাউন্ডশনের সক্ষমতা বিনির্মাণ; নওগাঁর মান্দায় শহীদ কামরুজ্জামান টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট স্থাপন; ভোলায় টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট স্থাপন, চট্টগ্রাম মহানগরীর পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা স্থাপন (প্রথম পর্যায়); নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে কঠিন বর্জ্য সংগ্রহ এবং অপসারণ ব্যবস্থাপনা; বহাদ্দারহাট বাড়ইপাড়া থেকে কর্ণফুলী নদী পর্যন্ত খাল খনন; চা–বাগান কর্মীদের জন্য নিরাপদ সুপেয় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন; উপজেলা ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণ (ষষ্ঠ পর্ব); বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ভবন নির্মাণ; ১১টি আধুনিক ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্থাপন; মাদারীপুরে সরকারি অফিসগুলোর জন্য বহুতল ভবন নির্মাণ; নির্বাচিত ৯টি সরকারি কলেজের উন্নয়ন; গোপালগঞ্জের শেখ রাসেল উচ্চ বিদ্যালয় ও ঢাকা সূত্রাপুরের শেরেবাংলা বালিকা মহাবিদ্যালয়ের অবকাঠামো উন্নয়ন; চট্টগ্রাম-খুলনা-রাজশাহী এবং রংপুর বিভাগে একটি করে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ স্থাপন; ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন; সোনাগাজী ৫০ মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ; বীজ প্রত্যয়ন কার্যক্রম জোরদার করা; নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের আনুষঙ্গিক সুবিধাদিসহ বিশেষ ধরনের পন্টুন নির্মাণ ও স্থাপন; বৃহত্তর রাজশাহী জেলার গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন (রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ); বৃহত্তর নোয়াখালী (নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষ্মীপুর জেলা) পল্লি অবকাঠামো উন্নয়ন; প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন; বাঙ্গালী-করতোয়া-ফুলজোর-হুড়াসাগর নদী সিস্টেম ড্রেজিং বা পুনঃখনন ও তীর সংরক্ষণ প্রকল্প।
মর্নিংসান/এসএ