মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৮-১১-২০১৮ Time:১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ


নিউজ ডেস্ক  ::     শিগগির শুরু হচ্ছে বুলেট ট্রেন চলাচলে উপযোগি ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথ নির্মাণকাজ। ঢাকা থেকে কুমিল্লার লাকসাম হয়ে চট্টগ্রাম পর্যন্ত এ রেলপথ নির্মাণ করা হবে। । ইতোমধ্যে সরকার এ সংক্রান্ত প্রকল্পের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে।

চায়না রেলওয়ে কনস্ট্রাকশন করপোরেশন লিমিটেডের সঙ্গে সোমবার ৫ নভেম্বর সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। প্রকল্পটি চীনের সঙ্গে জি-টু-জি পদ্ধতিতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস্তবায়ন করা হবে। রেলওয়ে সূত্র জানায়, প্রায় ৩০ হাজার ৯৫৫ কোটি ৭ লাখ টাকার প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

প্রকল্প সহায়তা হিসেবে চীন থেকে পাওয়া যাবে ২৪ হাজার ৭৬৪ কোটি ৬ লাখ টাকা। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলওয়ে সেকশন করিডোরের দৈর্ঘ্য ৩২০ দশমিক ৭৯ কিলোমিটার। বর্তমানে ঢাকা থেকে ট্রেন বৃত্তাকার পথে টঙ্গী-ভৈরব বাজার-ব্রাহ্মণবাড়িয়া-কুমিল্লা হয়ে চট্টগ্রামে পৌঁছায়। এতে সময় লাগে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা যাতায়াতে সময় লাগবে মাত্র ২ ঘণ্টা। বুলেট ট্রেন প্রতি ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার বেগে চলবে। যাত্রীদের সময়ের দূরত্ব কমিয়ে আনতে বর্তমান সরকার এ পরিকল্পনা গ্রহণ করে জানা গেছে, রেলপথ মন্ত্রণালয় এ প্রকল্পের ভিত্তি স্থাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই, নকশা প্রণয়ন ও নির্মাণকাজের জন্য পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

নকশা তৈরির কাজেও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে চূড়ান্ত নকশা জমা দেওয়ার কথা রয়েছে। প্রস্তাবিত দ্রুতগতির রেলপথটি যাবে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মধ্যদিয়ে। এ পথে ঢাকা থেকে কুমিল্লার লাকসাম হয়ে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ করা হলে সেকশনের দৈর্ঘ্য প্রায় ৯০ কিলোমিটার কমে যাবে।

এতে যাত্রীদের দ্রুত সময়ে যাতায়াতের সুবিধার পাশাপাশি রেলের পরিচালন ব্যয় ও পরিবহন ব্যয় কমে যাবে। রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক চট্টগ্রাম-দোহাজারী রুটে ট্রেন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে জানান, রেললাইনের উন্নয়ন করে দেশের সব বিভাগীয় শহরে বুলেট ট্রেন চালু করা হবে।

সর্বপ্রথম ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে বুলেট ট্রেন চালুর কাজ চলছে। আমদানি-রফতানি বাণিজ্যের বেশিরভাগ কাজ চলে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়েই। তাই চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় পণ্য পরিবহনও হয় বেশি। বুলেট ট্রেন চালু হলে ব্যবসায়ীরা দ্রুত পরিবহন সুবিধা পাবেন বলে জানান চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারীরা।
মর্নিংসান/এসএ