মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০৭-০৪-২০১৯ Time:৫:৩৫ অপরাহ্ণ


পুলিশ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র চবি, আহত ৭

চট্টগ্রাম অফিস: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুরো ক্যাম্পাস রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। সংঘর্ষে এক পুলিশ সদস্যসহ ৭ জন আহত হয়েছেন।

রোববার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে অরোধের ডাক দেয়া ছাত্রলীগের একাংশ। এরপর সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ তালা খুলতে গেলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জলকামান ও বেশ কয়েকটি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। এসময় ডিবি পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

সংঘর্ষে পুলিশের কনস্টেবল ফরিদ, ছাত্রলীগ কর্মী আইন বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের সাদি মুর্শেদ, যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের মোখলেছ, নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের একই সেশনের রমজান আহত হয়েছেন। এছাড়া আরও একজন ছাত্রলীগ কর্মী ও দুইজন পথচারীও আহত হন। তবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. আবু তৈয়ব বলেন, সংঘর্ষে আহত সাতজন চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, ধর্মঘটের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ে শাটল ট্রেন চলাচল করতে পারে নি। এছাড়া শিক্ষকদের বাসও আসেনি। চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে শাটল ট্রেনের কয়েকটি বগির হোস পাইপ কেটে দেয় ছাত্রলীগের একাংশের কর্মীরা। এদিকে অবরোধের কারণে শিক্ষার্থী না আসায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সবকটি বিভাগ ও ইনস্টিটিউটে ক্লাস-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি।

এর আগে শিক্ষার্থীদের ওপর নির্যাতন ও মামলা প্রত্যাহারসহ চার দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দেয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক সংগঠন চুজ ফ্রেন্ড উইথ কেয়ার (সিএফসি) ও বিজয় গ্রুপের কর্মী। আন্দোলনের একপর্যায়ে পুলিশের সাথে কথা কাটাকাটি থেকে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে ছাত্রলীগের কর্মীরা। এসময় পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করলে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় ছাত্রলীগ কর্মীরা। পুলিশ জিরো পয়েন্টে এবং ছাত্রলীগ কর্মীরা কাটা পাহাড়ের রাস্তায় ও শাহ জালাল হলের সামনে অবস্থান নিয়ে পুলিশের দিকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে৷

এ বিষয়ে হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দিন বলেন, বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।