আমাদের সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণের জন্য কাজ করেছে এবং করে যাচ্ছেঃ তথ্যমন্ত্রী

সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় বাধা দেয়া সমীচীন নয় বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, যারাই এ ধরনের ঘটনা ঘটাক সরকার তাদের কঠোর হস্তে দমন করতে বদ্ধপরিকর।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে তার সঙ্গে বাংলাদেশ ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে রাজধানীর পুরান ঢাকার নয়াবাজারে নিউজটোয়েন্টিফোরের রিপোর্টার ও ক্যামেরা পারসনের ওপর হামলা চালায় বন্ডের অবৈধ সুবিধা ভোগী ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীরা।

এতে আহত হন টেলিভিশনটির প্রতিবেদক ফখরুল ইসলাম এবং ক্যামেরা পারসন শেখ জালাল। পরে তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের সভাপতি রেজোয়ানুল হক বলেন, সম্প্রতি সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও নির্যাতনের সংখ্যা বেড়ে গেছে।

ঢাকা সিটি নির্বাচনের দিন এবং পুরান ঢাকায় সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও ক্যামেরা কেড়ে ড্রেনে ফেলে দেয়া ও গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এসব ঘটনায় আমরা সাংবাদিক সমাজ উদ্বিগ্ন। এসব ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে তারা ভয় পেত।

মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে নির্যাতন, হামলা, মামলা থেকে বাঁচতে পেশাগত কাজে আরও মনোনিবেশ করতে পারব।

জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি যে ঘটনাগুলো ঘটেছে প্রত্যেক ঘটনার পরপরই আমি নিন্দা জানিয়েছি। এ ধরনের ঘটনা সত্যি অনভিপ্রেত, দুঃখজনক ও নিন্দনীয়। সরকারও এক্ষেত্রে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিন যে হামলা হয়েছিল সেই হামলার পেছনের যারা যুক্ত ছিল তাদের বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুরান ঢাকার ঘটনা নিয়েও গ্রেফতার হয়েছে। সরকার দ্রুতই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

তিনি আরও বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কাউকে বাধা দেয়া কখনও সমীচীন নয়, সেটি যে পেশাই হোক।

আমরা ইতোমধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি, আজকে আবারও বলবো- এ ধরনের ঘটনা সরকার কঠোর হস্তে দমন করতে বদ্ধ পরিকর।

আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে টেলিভিশন ও বেতারের বিকাশের কথা তুলে ধরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণের জন্য অনেক কাজ করেছে এবং করে যাচ্ছে। এতগুলো রেডিও এবং টেলিভিশনের বিকাশ ঘটেছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।

৩৪টি টিভি চ্যানেল সম্প্রচারে আছে, ২২টি এফএম বেতার কেন্দ্র ও ১৮টি কমিউনিটি চালু আছে। লাইসেন্স রয়েছে আরও অনেক বেশি। ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারকে পেশাগত কাজের পাশাপাশি জাতি গঠনে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান তথ্যমন্ত্রী।