বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ কুমার

নেপালের সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ কুমার গাইওয়াল আজ বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন।

এ সময় রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশ এবং নেপালের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্ভাবনা কাজে লাগানোর প্রয়োজনীয়তার গুরুত্বারোপ করেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানান, সাক্ষাৎকালে আবদুল হামিদ বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সম্ভাবনা খুঁজে দেখার এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ ও নেপালের ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। এ সম্ভাবনা যথাযথভাবে কাজে লাগাতে পারলে উভয় দেশ লাভবান হবে।
আবদুল হামিদ দ্বিপক্ষীয় বন্ধন জোরদারে দু’দেশের মধ্যে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে প্রতিনিধিদের সফর বিনিময়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বেশ কিছু নেপালী ছাত্র-ছাত্রী বাংলাদেশে লেখাপড়া করছে এবং তারা পরীক্ষায়ও ভাল করছে। তিনি শিক্ষা এবং সাংস্কৃতিক খাতেও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক সম্প্রসারণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

আবদুল হামিদ বলেন, ‘আমাদের বন্ধুপ্রতীম দু’দেশের মধ্যে সংযোগ বৃদ্ধিতে ব্যাপক উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন।’

রোহিঙ্গা ইস্যুকে বাংলাদেশের জন্য বিরাট সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি মিয়ানমারে তাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিতকরণে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ফোরামে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করার জন্য নেপাল সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের কথা উল্লেখ করে প্রদীপ কুমার বলেন, বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় ইস্যু বিশেষ করে বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং পর্যটন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

এতে দু’দেশের মধ্যে সহযোগিতা সম্প্রসারণ সহায়ক হবে। বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির সম্প্রতি কাঠমান্ডু সফরের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এর ফলে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের সূচনা হয়েছে।