আ’লীগে কোন পকেট কমিটি গঠন করা হবে না: কাদের

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আজ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে দলকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

এখানে ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে আওয়ামী লীগের রাজশাহী মহানগর শাখার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগে সুযোগ সন্ধানীদের দরকার নেই’।

তিনি বলেন, দলের সব শাখা এবং সহযোগী সংগঠন কেবলমাত্র নিবেদিতপ্রাণ কর্মীদের নিয়েই পুনর্গঠন করা হবে। পকেটের-লোকজন নিয়ে কমিটি গঠন করা হলে আওয়ামী লীগ সুযোগ সন্ধানীদের হাতে চলে যাবে।

সুতরাং, কোনও পকেট কমিটি গঠন করা হবে না। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করার জন্য দলকে শক্তিশালী করতে সব নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নিবেদিত প্রাণ নেতাকর্মীদের স্বার্থ রক্ষা করতে হবে, কারণ তারাই দলের জীবন রক্ষাকারী। ‘আমরা আওয়ামী লীগে কোন সুযোগসন্ধানী, চাঁদাবাজ, জমি দখলকারী ও মাদক ব্যবসায়ীকে আশ্রয় দিচ্ছি না।’

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, দলের জন্য নেতা হওয়ার চেয়েও কর্মী হওয়া বেশি জরুরি।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বর্তমানে বিএনপির রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে খালেদা জিয়ার অসুস্থতা আর তারেক রহমানের স্কাইপে।

তিনি বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে বাংলাদেশ সকল উন্নয়ন সূচকে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিস্ময়করভাবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে।’ তিনি বলেন, জনগণের কাঙ্খিত পর্যায়ে নিয়ে দেশকে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে ক্ষমতার ধারাবাহিকতা একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অনেক দেশ দীর্ঘকাল ধরে একক দল দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা জনসমর্থন ব্যতীত একদিনের জন্যও ক্ষমতায় থাকতে চাই না।’

হাছান মাহমুদ বলেন, বিরোধী বিএনপির চেয়েও দলীয় নেতা-কর্মীদের বিরূপ ও অবমাননাকর আচরণ আওয়ামী লীগের জন্য বেশি ক্ষতিকর হবে। তাই এ বিষয়ে দলীয় সব নেতা-কর্মীকে সজাগ থাকতে হবে।

আওয়ামী লীগ মহানগর শাখার সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, আবু সাইদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, ড. নুরুল ইসলাম ঠান্ডু ও আক্তার জাহান।

অন্যান্যের মধ্যে উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অধ্যাপক আবদুল খালেক ও অধ্যাপক সাইদুর রহমান খান, এনামুল হক এমপি, আয়েন উদ্দিন এমপি, অধ্যাপক মনসুর রহমান এমপি, ড. সামিল উদ্দিন আহমেদ এমপি, অ্যাডভোকেট আদিবা আনজুম এমপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে তারা জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং কবুতর এবং বেলুন উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।