শেষ মুহূর্তের দুই গোলে রিয়ালের কষ্টার্জিত ড্র

ঘরোয়া লিগে যেমন উড়ন্ত পারফরম্যান্স করছে রিয়াল মাদ্রিদ, উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে ঠিক যেন তার বিপরীত। নিজেদের ঘরের মাঠে শাখতার দোনেৎস্কের কাছে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে বুরুশিয়া মুনশেনগ্ল্যাডবাখের বিপক্ষে হারতে হারতে ড্র করেছে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা।

২-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও ম্যাচের ৮৭ মিনিটে করিম বেনজেমা এবং ৯৩ মিনিটে ক্যাসেমিরোর গোলে ২-২ গোলে ড্র করে মাঠ ছাড়ে রিয়াল।

চ্যাম্পিয়নস লিগে বাজে সময়টা যেন কিছুতে পিছু ছাড়ছে না রিয়াল মাদ্রিদের। গত মৌসুমে রাউন্ড অব-১৬তে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে দুই লেগেই হার। এরপর নতুন ২০২০/২১ মৌসুমে গ্রুপ পর্বের শুরুটা শাখতার দোনেৎস্কের বিপক্ষে হার দিয়ে। আর নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও সেদিকেই আগচ্ছিল লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। ম্যাচের প্রথমার্ধের ৩৩ মিনিতে মার্কাস থুররামের গোলে এগিয়ে যায় বুরুশিয়া মুনশেনগ্ল্যাগবাখ। আর নিজেদের ঘরের মাঠে লিড নিয়েই বিরতিতে যায় বুরুশিয়া।

রিয়াল মাদ্রিদ শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেললেও মুনশেনগ্ল্যাডবাখের রক্ষণে ফাটল ধরাতে পারেনি। উল্টো ম্যাচের ৩৩ মিনিটে মার্কার থুররামের দুর্দান্ত গোলে পিছিয়ে পড়ে লস ব্ল্যাঙ্কোসরা। বিরতি থেকে ফিরে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় রিয়াল তবে থুররামের রিয়ালকে ম্যাচে ফিরতে দেওয়ার কোনো ইচ্ছায় যেন ছিল না। তাই তো ৫৮ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে দলের লিড ২-০ করেন।

এরপর গোলের জন্য মরিয়া রিয়াল ম্যাচের ৭০ মিনিটে ভিনিসিয়াস জুনিয়র এবং টনি ক্রুসের বদলে মাঠে নামায় এডেন হ্যাজার্ড এবং লুকা মদ্রিচকে। এডেন হ্যাজার্ড শেষবার রিয়ালের জার্সি পরে মাঠে নেমেছিলেন ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে গেল মৌসুমের রাউন্ড অব-১৬’র দ্বিতীয় লেগে। তবে তারা দুইজন মাঠে নামলেও খেলার চিত্র পাল্টেনি।

তবে শেষ দিকে এসে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে রিয়াল। ম্যাচের আর মাত্র তিন মিনিট বাকি থাকতে ক্যাসেমিরোর পাস থেকে গোল করে ব্যবধান ২-১ করে করিম বেনজেমা। তখনও ম্যাচ হাত ফোঁসকে বেরিয়ে যাচ্ছিল রিয়ালের। অন্যদিকে অপেক্ষার প্রহর গুনছিল বুরুশিয়া মুনশেনগ্ল্যাডবাখ। নির্ধারিত সময় শেষে যোগ করা অতিরিক্ত সময়ের তৃতীয় মিনিটে মদ্রিচের ক্রস থেকে বলে মাথা ছোঁয়ান রামোস, তবে গোলের উদ্দেশে নয়; বল বাড়িয়ে দেন ক্যাসেমিরোর দিকে। আর গোলমুখে বল পেয়ে একচুলও ভুল করেননি ক্যাসেমিরো, বল জালে জড়িয়ে দলকে ২-২ গোলে সমতায় ফেরান।

শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলে সমতায় থেকেই খেলা শেষ হয়। আর উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে টানা তিন ম্যাচ হারের পর অবশেষে ড্র করতে পারল রিয়াল। এদিকে গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে এক হার এবং এক ড্র’তে এক পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে রিয়াল।

এদিকে ঘরের মাঠে জাও ফেলিক্সের জোড়া গোলে এফসি সালজবুর্গকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। অ্যাটলেটির পক্ষে বাকি গোলটি করেন মার্কোস লরেন্তে।