২৬ মার্চ থেকে ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন চালু

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে নতুন আরেকটি রেলপথ যোগ হতে চলেছে। আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের দিন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি (এনজেপি) থেকে ঢাকার মধ্যে নতুন এই রেল সেবা চালু হতে যাচ্ছে। এ নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে তিনটি রেলপথ চালু হতে যাচ্ছে।

আপাতত সপ্তাহে দুদিন সোমবার ও বৃহস্পতিবার ট্রেনটি ভারতের এনজেপি স্টেশন থেকে ছাড়বে। অন্যদিকে সপ্তাহের প্রতি মঙ্গলবার ও বুধবার ট্রেনটি ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশন থেকে ছাড়বে। বিরতিহীনভাবে ট্রেনটি নয় ঘণ্টা চলবে। তবে ট্রেনটির নামকরণ এবং ভাড়া এখনও ঠিক হয়নি বলে জানা গেছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভার্চুয়াল উপস্থিতিতে নতুন এই রেলপথ চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা করেন, এই রেলপথ দিয়েই ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তরবঙ্গের সঙ্গে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের মেলবন্ধন ঘটবে।

নতুন রেলপথ চালু নিয়ে গত মঙ্গলবার ভারত ও বাংলাদেশের রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক হয়েছে বলে জানা গেছে। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম এবং ভারতের পক্ষে রবীন্দ্র কুমার ভার্মা নেতৃত্ব দেন।

বৈঠকের পর দুই দেশের কর্মকর্তারা জানান, মূলত পর্যটন শিল্পকে সামনে রেখেই এই রেলপথ চালু করা হচ্ছে। ২৬ মার্চ পশ্চিমবঙ্গের এনজেপি স্টেশন থেকে দুপুর ২টায় ট্রেনটি বাংলাদেশের উদ্দেশে যাত্রা করবে। ট্রেনটিতে ছয়টি স্লিপার কোচের পাশাপাশি দুটি চেয়ার কোচ থাকবে।

এর আগে কলকাতা থেকে ঢাকা পর্যন্ত ‘মৈত্রী এক্সপ্রেস’ এবং কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ চালু করা হয়।