করোনাভাইরাস: বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় ৭ হাজার ৫১১ জনের মৃত্যু

মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের তাণ্ডবে বিশ্বব্যাপী গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭ হাজার ৫১১ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং শনাক্ত হয়েছে ৪ লাখ ৬৯ হাজার ৮৬১ জন। এ নিয়ে বিশ্বে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ লাখ ৭৩ হাজার এবং আক্রান্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ২৪ লাখের বেশি। টিকা আবিষ্কার হলেও মৃত্যুর মিছিল অব্যাহত থাকায় এখনও অস্বস্তিতে বিশ্ববাসী।

করোনা আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান বিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ২৪ লাখ ৪ হাজার ৪২৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৮ লাখ ৭৩ হাজার ৫০৩ জনের। অন্যদিকে, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০ কোটি ৬৬ লাখ ৯১ হাজার ৯০ জন।

প্রাণঘাতী করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ১৪ লাখ ৯০ হাজার ৫৬৩ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৬৯ হাজার ১৯৭ জনের।

সংক্রমণে ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় স্থানে থাকা দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল প্রিয় দেশ ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৩০ লাখ ২৩ হাজার ১৮৯ জন এবং মারা গেছে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ১৫৩ জন।

সংক্রমণে ১৪তম স্থানে থাকলেও মৃত্যুতে তৃতীয় স্থানে উঠে আসা দক্ষিণ আমেরিকার আরেক দেশ মার্কিন সীমান্তবর্তী মেক্সিকোতে আক্রান্তের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে হু হু করে বাড়ছে মৃত্যু। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২২ লাখ ৫১ হাজার ৭০৫ জন সংক্রমিত হলেও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৪ হাজার ৩৯৯ জনে।

সংক্রমণে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে চতুর্থ অবস্থানে থাকা এশিয়ার দেশ ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় এক কোটি ২৬ লাখ ৮৪ হাজার ৪৭৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫৭৭ জনের।

এদিকে, আক্রান্তের দিক থেকে রাশিয়াকে টপকে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে ইমান্যুয়েল ম্যাক্রোর ফ্রান্স। ইউরোপের এ দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৮ লাখ ৩৩ হাজার ২৬৩ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯৬ হাজার ৮৭৫ জনের।

আর সংক্রমণে পিছিয়ে পড়ে পঞ্চম স্থানে জায়গা পেলেও মৃত্যুতে ঠিকই ফ্রান্সের ওপরে পুতিনের রাশিয়া। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪৫ লাখ ৮৯ হাজার ৫৪০ জন আক্রান্ত হলেও মৃত্যুর সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে, ১ লাখ ৭১৭ জন।

এছাড়া আক্রান্তের তালিকায় যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ ও ইতালি সপ্তম স্থানে থাকলেও স্পেনকে টপকে অষ্টম স্থানে জায়গা করে নিয়েছে এরদোগানের তুরস্ক। যাতে নবম স্থানে নেমে গেছে স্পেন এবং জার্মানি আছে দশম স্থানে। এ ছাড়া আক্রান্ত বেড়ে বাংলাদেশের অবস্থান একধাপ কমে ৩৩তম স্থানে।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে এই মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চল।