খালেদা জিয়ার জন্য রান্না করা খাবার আনলেন মহিলা নেত্রীরা

bnnঢাকা অফিস:গুলশানে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবরুদ্ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জন্য এবার রান্না করা খাবারই নিয়ে এলেন নেত্রীরা। বৃহস্পতিবার কাঁচা-তরকারি নিয়ে এসে ব্যর্থ হলেও এবার সফলতার সঙ্গেই ওই খাবার নিয়ে কার্যালয়ে ভেতের প্রবেশ করেছেন তারা।
শনিবার বাসা থেকে বিভন্ন ধরনের খাবার রান্না করে খালেদা জিয়ার জন্য এনেছেন তারা। এর মধ্যে রয়েছে সাদা ভাত, পোলাও, রুই মাছ, ইলিশ মাছ, মুরগীর মাংস, সবজি, পায়েশ ও বিভিন্ন ধরনের তরকারি। এদিন দুপুর সোয়া ২টার দিকে তারা এসব খাবার নিয়ে কার্যালয়ের সামনে আসেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহিলা দলের সভাপিত নুরে আরা সাফা, প্রাক্তন সংসদ সদস্য রওশন আরা ফরিদ, নেওয়াজ হালিমা আরলি, শামীমা আক্তার শানু, এলিজা বেগম, মমতাজ বেগম প্রমুখ। পরে পুলিশের অনুমতি নিয়ে তাদের মধ্যে নয়জন খাবার নিয়ে কার্যালয়ে প্রবেশ করেন।এই নেত্রীরাই বৃহস্পতিবার অবরুদ্ধ খালেদা জিয়ার জন্য কাঁচা-তরকারি নিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ তাদের আটকে দেয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, কোনো প্রকার কাঁচা বাজার নিয়ে ভেতরে যাওয়া যাবে না। তবে রান্না করা খাবার ভেতরে নিয়ে যাওয়া যাবে। ওইদিন নিয়ে আসা মাছ-মাংস ও কাঁচা-তরকারি মধ্যে ছিল মুরগী, রুই মাছ, আলু, লাউ, কাঁচা মরিচ, ধনেপাতা, ফুলকপি, বাঁধাকপি, লালশাক, লাউশাক, টমেটো, আপেল, পেঁপে, পেয়োরা, বাতাবি লেবু, গাজর, দই, মিষ্টি।দশম সংসদ নির্বাচনের বছর পূর্তির দিন ৫ জানুয়ারি বিএনপি গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে পালনের ঠিক দুদিন আগে শনিবার রাতে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে পুলিশ বেষ্টনীতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন খালেদা জিয়া। সেই থেকে এখন পর্যন্ত সেখানেই অবস্থান করছেন তিনি। কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় নিজের চেম্বারে অনেকটা শুয়ে-বসে সময় কাটছে বিএনপি চেয়ারপারসনের। মাঝে মধ্যে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান ও অন্যান্য নেত্রীদের সঙ্গে গল্প করে সময় পার করছেন।গত সোমবার বিকেলে গণতন্ত্র হত্যা দিবসে জনসভা ও কালো পতাকা মিছিলে অংশ নেওয়ার জন্য রওনা দিলে পুলিশের বাধার মুখে বের হতে পারেননি খালেদা। পরে সেখান থেকেই অনির্দিষ্টকালের অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। বর্তমানে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে তার সঙ্গে রয়েছেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল, বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, কার্যালয়ের কর্মকর্তা এম এ কাইয়ুম, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদার, শামসুল আল আমীন ডিউ। এ ছাড়া অফিস সহকারী ও চেয়ারপারসনের নিরাপত্তা স্কোয়াডের সদস্যরা রয়েছেন। এ দিকে গত সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে পেপার স্প্রে ব্যবহারের পর খালেদা জিয়ার যে অসুস্থতা দেখা দিয়েছিল তা এখনো রয়েছে বলে জানিয়েছেন তার প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল।