১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা

Sunday, 11/01/2015 @ 2:49 pm

97272_1ঢাকা অফিস: বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, সমৃদ্ধি ও ঐক্য কামনায় শেষ হলো ৫০ তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত।
টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে লাখ লাখ মানুষের অংশগ্রহণে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন দিল্লীর মাওলানা মোহাম্মদ সা’দ।রবিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে আখেরি মোনাজাত শুরু হয়। শেষ হয় বেলা পৌনে ১২টার দিকে।তিন দিনব্যাপী ইজতেমার প্রথম পর্বের শেষ দিন রবিবার বাদ ফজর উসুলে বয়ানের মধ্যে দিয়ে দিনের কার্যক্রম শুরু হয়। সকাল ৯টা পর্যন্ত চলে এ বয়ান।এরপর এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে তাশকিল ও হেদায়েতি বয়ান শুরু হয়। বয়ান করেন দিল্লীর মাওলানা মোহাম্মদ সা’দ। এরপর তিনিই বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, ঐক্য, ভ্রাতৃত্ব, কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করে আরবি ও উর্দু ভাষায় মোনাজাত পরিচালনা করেন।প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লির ‘আল্লাহু আকবার’ ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠেছে ইজতেমার মাঠ। টঙ্গী মাঠ পরিণত হয় ধর্মীয় উৎসবের নগরীতে।গত শুক্রবার বেলা দেড়টার দিকে ইজতেমা ময়দানে দেশের বৃহত্তম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হন। এতে লাখো মুসল্লি অংশ নেয়।শুক্রবার বাদ ফজর পাকিস্তানের আলেম মাওলানা মো. এহসানের আম বয়ানের মাধ্যমে ইজতেমা শুরু হয়। বয়ান বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মাওলানা মো. আব্দুল মতিন।এর আগে বৃহস্পতিবার আসরের পর থেকেই ভারতের মাওলানা আহম্মদ লাট ময়দানে আগত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে ঈমান, আমল ও আখলাক সম্পর্কিত বয়ান করেন।
আখেরি মোনাজাতের সুবিধার্থে শনিবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে আব্দুল্লাহপুর-জয়দেবপুর ও আব্দুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। ইজতেমা নির্বিঘ্নে পরিচালনা করতে মাঠে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। ইজতেমায় বিদেশি ও সাধারণ মুসল্লিদের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ, আনসার ও র্যাব সদস্যসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য মোতায়েন করা হয়।
আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। ১৮ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে এবারের ৫০ তম বিশ্ব ইজতেমা।