রামগঞ্জে স্কুল ছাত্রীর শ্লীতাহানির ঘটনায় শিক্ষক বরখাস্ত

indexমোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ৯নং ভাটরা ইউনিয়নের দল্টা রহমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় ক্রীড়া শিক্ষক গোফরানকে সাময়িক বরখাস্ত করে ৭সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সৃষ্ট ঘটনায় গতকাল সোমবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, দল্টা রহমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রী গত ১৮ জানুয়ারী বিদ্যালয়ে গেলে ক্রীড়া শিক্ষক মোঃ গোফরান ক্লাশ রুমের ভিতর ওই ছাত্রীকে গায়ে হাত দিয়ে শ্লীতাহানির চেষ্টা করে। ছাত্রী বাড়িতে গিয়ে কান্নাকাটি করে তার মা রহিমা বেগমকে জানালে মা তাৎক্ষনিক বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক মোঃ তছলিম হোসেনে মৌখিক অভিযোগ জানায়। দীর্ঘ ১২দিন অতিবাহিত হওয়ার পর ও প্রধান শিক্ষক কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় ৩১ জানুয়ারী শনিবার ছাত্রীর মা প্রধান শিক্ষক বরাবর লিখিতভাবে একটি লিখিত অভিযোগ করে অনুলিপি বিভিন্ন দপ্তরে পাঠায়। খবর পেয়ে স্থানীয় এলকাবাসী ও অভিভাবকবৃন্দ ওই ক্রীড়া শিক্ষক গোফরানকে একটি কক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির লোকজান এসে ওই শিক্ষককে উদ্ধার করে ঘটনা তদন্তের জন্য ৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে আগামী ৭ দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্ত শিক্ষক মোঃ গোফরানকে বারবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এ্যাড. সফিক মাহমুদ পিন্টু জানান , অভিযুক্ত শিক্ষককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ কামাল হোসেন জানান, জেলা শিক্ষা অফিসার ঘটনাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সৈয়দ আহম্মেদ জানান, ঘটনাটি তদন্ত করেছি প্রতিবেদন আকারে রির্পোঠ পেশ করব।