কর্মসূচি নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার  কিছু নেই সব কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ হবে- মির্জা আব্বাস

 

ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস আওয়ামী লীগের উদ্দেশে বলেছেন, “কর্মসূচি নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। আমরা মিছিল করছি, প্রতিবাদ করছি। তবে সব কর্মসূচি হবে শান্তিপূর্ণ। আপনারা আরামে আছেন, আরামে থাকেন।”

বুধবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে ভাসানি ভবনে দলের মহানগর কার্যালয়ে এক মহানগর বিএনপির যৌথসভায় তিনি এ কথা বলেন।

ঢাকা মহানগর বিএনপির যৌথ সভায় সভাপতিত্ব করেন মির্জা আব্বাস।

এদিকে যৌথসভাকে কেন্দ্র করে মহানগর বিএনপির কার্যালয়ের আশপাশের এলাকায় পুলিশের সংখ্যা বাড়ানো হয়। পুলিশ কার‌্যালয়ের সামনে যানবাহন রাখতে বাধা দেয় পুলিশ। নেতাকর্মীদেরও অবস্থানেও নিষধ করা হয়।

কার‌্যালয়ের সামনে পুলিশের কড়াকড়ির সমালোচনা করে মির্জা আব্বাস বলেন, “আমরা একটা সভা করছি তাতেই স্বশস্ত্র অবস্থায় পুলিশ অবস্থান করছে। কাউকে দাঁড়াতে দিচ্ছে না। এতো ছোট মিটিংয়ে আতঙ্কিত হলে সামনে তো অনেক সময় বাকি আছে। তখন কী হবে।”

বিএনপির সরকারবিরোধী আন্দোলনের ক্ষমতা নেই- আওয়ামী লীগ নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে আব্বাস বলেন, “আমাদের কিছু করার না থাকলে আপনারা কেন এত প্রস্তুতি নিচ্ছেন। দয়া করে গণতন্ত্রকে গলাটিপে না ধরে তার পথে চলতে দিন।”

সরকার ভয় পেয়ে এসব করছে এমন দাবি করে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আব্বাস বলেন, “আমরা সংগঠন গোছাচ্ছি। বেগম খালেদা জিয়া আমাদের হাতে ঢাল তলোয়ার তুলে দেননি।আমাদের কর্মসূচিও হবে শান্তিপূর্ণ। তবে এতে বাধা দিলে তার জন্য সরকার দায়ি থাকবে।”

আগামী ১৬ আগস্ট গাজায় হামলার প্রতিবাদে ঘোষিত মৌন মিছিল ওইদিন বিকেল তিনটায় রাজধানীর নয়াপল্টন থেকে শুরু হবে বলে জানান আব্বাস। তবে কোথায় গিয়ে শেষ হবে তা পরে জানানো হবে।

তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, “শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে কেউ উসকানিমূলক কাজ করার চেষ্টা করবেন না।”

বৈঠকে মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল ছাড়াও সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, বরকত উল্লাহ বুলু, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আব্দুস সালাম, কাজী আবুল বাশার, এসএ খালেক, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, ব্যরিস্টার নাসির উদ্দিন অসীম প্রমুখ।