মর্নিংসান২৪ডটকম Date:৩১-০৩-২০১৫ Time:৭:৪২ অপরাহ্ণ


fatikমোঃ আবু মনসুর, প্রতিনিধি ফটিকছড়ি : অপহরনের ৪দিন পর ত্রিশ হাজার টাকা মুক্তিপনের বিনিময়ে উদ্ধার হলো শিশু সাজিদ। গত সোমবার দিবাগত রাত নয়টায় অপহরনকারীরা তাকে চট্টগ্রামের বহদ্দার হাট রাহাত্তার পুল এলাকায় ছেড়ে চলে যায়। গত শুক্রবার বিকালে অতিথি সেজে অপহরন করেছিল সাজিদকে। দাঁতমারা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ পুলিশ পরিদর্শক মীর কাসেম আলী বলেন, গোপন তথ্যে ভিত্তিতে অপহরনকারীদেরকে সাতকানিয়া দেও দীঘি বাবু নগর এলাকা থেকে অনুসরন করা হয়। পুলিশের অনুসর টের পেয়ে অপহরনকারীরা এক পর্যায়ে চট্টগ্রাম শহরের কালা মিঞা বাজার রাহাত্তার পুল এলাকায় সাজিদকে ফেলে পালিয়ে যায়। তবে মুক্তিপনের বিষয়টি তিনি অবগত নন বলে জানান। এর পর পুলিশ ও তার আত্মীয় স্বজন সেখানে থেকে তাকে নিয়ে আসে। সাজিদের মা জাহানারা ও মামা হাবীব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাজিদদের বাড়িতে গিয়ে কথা হয় সাজিদের সাথে। এসময় সাজিদ জানান অপহরনের কাহিনী। এদিকে গত সোমবার সকাল এগারটায় সাজিদের মা দুটি মোবাইল নাম্বারে (০১৭৯৭০৫৫০১০, ০১৭৫৫৯০৭৭৫৭) বিকাশের মাধ্যমে ত্রিশ হাজার টাকা পাঠায় অপহরনকারীদের কাছে। কথা ছিল টাকা পাঠানোর দু ঘন্টার পর সাজিদকে ফেরত দেয়া হবে। কিন্তু সন্ধ্যা পর্যন্ত সাজিদকে ফেরত না দেয়ায় উৎকন্ঠা বাড়ে তাদের পরিবারে। এর পর সন্ধ্যায় মোবাইলে অপহরনকারীরা জানান যে সাজিদকে ফেরত দেয়া হবে। কথা মত তারা দক্ষিন চট্টগ্রামের সাতকানিয়া কেরানীর হাট থেকে একটি বাসে উঠিয়ে দেয় সাজিদকে। রাত আট টার দিকে বাসের হেলপার সাজিদকে চট্টগ্রামের বহদ্দার হাট রাহাত্তার পুল বনফুল মিষ্টির দোকানের সামনে নামিয়ে দেয়। কথামত পূর্ব থেকেই সেখানে অবস্থানে ছিল সাজিদের ভাই রাসেল,মামা হাবীবসহ অন্যান্য আত্মীয় স্বজনরা। পরবর্তীতে সেখানে গিয়ে উপস্থিত হন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ পুলিশ পরিদর্শক মীর কাসেম আলী।শিশু সাজিদ জানান, শুক্রবার বিকালে মায়ের কথামত সে অতিথি ফরিদকে আগিয়ে আনতে দাঁতমারা বাজারে যান। সেখান থেকে ফরিদ সাজিদকে নিয়ে শান্তির হাট বাজারে মাছ কেনার জন্য যাবে বলে সিএনজি উঠে। সাজিদ জানান, সিএনজি উঠার পর সে ঘুমিয়ে পড়ে আর কিছু বলতে পারেনা। যখন তার ঘুম ভাঙ্গে তখন সে দেখে একটি বাড়ীতে তাকে আটকে রাখা হয়েছে। সেখানে ফরিদের স্ত্রী হাসিনাকেও দেখে সে। সেখান থেকে বাড়ী ফিরে আসতে চাইলে ফরিদ তাকে মেরে ফেলবেনা হয় ঢাকায় বিক্রি করে দেবে এবং তার কিডনি ও চোখ বিক্রি করে দেবে বলে ধমকি দেয়। এভাবে তাকে সেখানে গত চার দিন আটকে রাখে। অপহরনকারী ফরিদ তাকে দিয়ে মুক্তিপনের টাকার জন্য তার মাকে ফোন করায়। ফোনে তাকে খাগড়াছড়ি আটকে রেখেছে বলে মিথ্যা কথা বলাতে বাধ্য করে। চজার দিন ধরে সাজিদকে শুধু টাকার জন্য ধমকি দিত বলে সে জানায়।

 

পাস্তুরিত দুধ নিয়ে কারসাজি আছে কি না দেখা উচিত: প্রধানমন্ত্রী» « চান্দগাঁওয়ে ডোমখালী খালে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু» « পাকিস্তানে সামরিক বিমান বিধ্বস্তে নিহত ১৭, আহত ১২» « র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ধর্ষণকারীর নিহত» « গুজব রটনাকারীদের ধরিয়ে দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর» « লামায় বন্যা ও পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ» « কক্সবাজার শহর রক্ষায় ঝাউবন করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর» « দেশের সব উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর» « সিঙ্গাপুরে ওবায়দুল কাদেরের স্বাস্থ্যের আশানুরূপ উন্নতি» « প্রাইভেটকারে করে এসে ছিনতাইয়ের চেষ্টা, ৩ জনকে গণপিটুনি» «