মর্নিংসান২৪ডটকম Date:০২-০৫-২০১৫ Time:৪:৫৭ অপরাহ্ণ


108112_1ক্রীড়া প্রতিবেদক: তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েসের অবিশ্বাস্য ব্যাটিংয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে লিড নিয়েছে বাংলাদেশ।
এর মধ্যে দিয়ে টেস্ট ইতিহাসে দলের দ্বিতীয় ইনিংসের উদ্বোধনী জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছেন এই দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।
ব্যক্তিগত ১৫০ রান করে ইমরুল বিদায় নিলেও ২০৬ রানের বীরোচিত ইনিংস উপহার দেন তামিম। মুশফিকের পর ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন তামিম ইকবাল।হাফিজের বলে সরফরাজের হাতে স্ট্যাম্পড হয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। যাওয়ার আগে ২৭৮ বল খেলে ৭টি ছয় ও ১৭টি চারের মার মারেন তামিম। এর আগে ২১ রান করে আউট হন মুমিনুল হক।সর্বশেষ জুটিতে মাহমুদুল্লাহ রিয়াজ ২৪ ও সাকিব ১ রান নিয়ে খেলছেন। দলীয় রান ৪০৫। ১১৪ রানের লিড নিয়েছে বাংলাদেশ।
টেস্টে তৃতীয় ও চতুর্থ ইনিংসে আর কোনো উদ্বোধনী জুটি তামিম-ইমরুলের চেয়ে বেশি রান করতে পারেনি।পাকিস্তানের বিপক্ষে খুলনা টেস্টের পঞ্চম দিন বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে ৩১২ রানের জুটি গড়েন বাংলাদেশের দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।
শুক্রবার দিন শেষে অবিচ্ছিন্ন প্রথম উইকেটে ২৭৩ রান করে ইংল্যান্ডের অ্যান্ড্রু স্ট্রস ও মার্কোস ট্রেসকোথিকের পাশে বসেছিলেন তামিম ও ইমরুল।২০০৪ সালে ডারবানে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসে ২৭৩ রানের জুটি গড়েছিলেন স্ট্রস ও ট্রেসকোথিক।
টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে তাদের রেকর্ড স্পর্শ করে মাঠ ছাড়েন বাংলাদেশি দুই ওপেনার।
এছাড়া আরো একটি রেকর্ড গড়েন এই দুই ব্যাটসম্যান। পাকিস্তানের ৬৩ বছরের টেস্ট ইতিহাসে তাদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন তারা।আগের রেকর্ডটি ছিল জিম্বাবুয়ের অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার-মারে গুডউইনের দখলে। ১৯৯৮ সালে বুলাওয়ে টেস্টে ২৭৭ রানের জুটি গড়েছিলেন তারা। দীর্ঘ ১৫ বছরের রেকর্ড ভেঙ্গে শেষ পর্যন্ত ৩১২ রানে বিচ্ছিন্ন হয় তামিম-ইমরুলের জুটি।
টেস্টের পঞ্চম দিনে খেলতে নেমে দুই ব্যাটসম্যানই দেড়শ রানের মাইলফলক পার করেছেন। যা তাদের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংসেও রেকর্ড। তাদের রেকর্ড গড়া ব্যাটিংয়ের কল্যাণে বাংলাদেশের স্কোর এক উইকেটে ৩০০ পেরিয়েছে।বৃষ্টির কারণে মাঝপথে ঘণ্টাখানেক বন্ধ থাকার পর খেলা পুনরায় শুরু হয়েছে।দুর্দান্ত এই ইনিংস খেলার পথে তামিম-ইমরুল দুজনই তাদের ব্যক্তিগত রানের আগের ইনিংস পেরিয়ে যান। তামিম দ্বিতীয়বারের মতো দেড়শ পেরোনো ইনিংস খেললেও ইমরুল পেয়েছেন প্রথমবারের মতো দেড়শ রানের ইনিংস।
২০১০ সালে মিরপুর টেস্টে ভারতের বিপক্ষে দেড়শ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তামিম। সে টেস্টে তামিম করেছিলেন ১৫১ রান।
খুলনা টেস্টের পঞ্চম দিনে সে রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছেন তামিম। ইমরুল আউট হলেও তামিমের সামনে একটাই লক্ষ্য টেস্ট ক্রিকেট দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে দুইশ রানের মাইলফলক স্পর্শ করা।ইতোমধ্যে টানা তিন টেস্ট সেঞ্চুরি করে ইতিহাসের বড় বড় ক্রিকেটারদের কাতারে নাম লেখান বাংলাদেশি এই ড্যাশিং ওপেনার।এর আগে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৩৩২ রানের জবাবে ৬২৮ রান করে পাকিস্তান।
পাকিস্তানের বিপক্ষে আগের আট টেস্টের সবকটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। এই টেস্টের যে অবস্থা তাতে ‘মিরাকল’ কিছু না ঘটলে বাংলাদেশ হারছে না এমনটা বলাই যায়।