নব নির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছিরকে সনাতনী নাগরিক সমন্বয় কমিটির সংবর্ধনা

a j m nasir uddinচট্টগ্রাম অফিস: নব নির্বাচিত সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেছেন প্রকৃত মানুষ ধার্মিক হতে পারে কখনো ধর্মান্ধ হতে পারেনা। আমাদের সবচেয়ে বড় পরিচয় আমরা মানুষ। আবেগ আপ্লুত কন্ঠে তিনি বলেন সনাতনী জনগনের সাথে আমার সম্পর্ক শৈশব থেকেই, যা আমৃত্যু অম্লান থাকবে। আমি আপনাদের একজন হিসেবে বেঁচে থাকতে চাই। এতদিন সুযোগ ছিলনা এখন কিছু করার মতো সুযোগ এসেছে। চেষ্টা করবো আপনাদের ঋণের কিছুনা হলেও শোধ করতে। নব নির্বাচিত নগরপিতা আ জ ম নাছির বলেন এদেশে আপনাদের পূর্ণ নাগরিক অধিকার রয়েছে। তাই নিজেদেরকে কখনো নিঃস্ব মনে করবেন না। আমি সবসময় আপনাদের পাশে আছি থাকব। আপনাদের যেকোন সমস্যা নিয়ে আমার কাছে আসবেন আমি সাধ্যমতো চেষ্টা করবো তা সমাধানের। নির্বাচনে যেভাবে আপনারা আমাকে সহযোগিতা করেছেন স্বপ্নের মেগাসিটি বিনির্মানেও আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। যেকোন মূল্যে পীর আউলিয়া সাধুু-সন্যাসীদের পূণ্যভূমি চট্টগ্রামকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মডেল হিসেবে আমি গড়ে তুলবো। তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের উন্নয়নে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। আপনাদের নির্বাচিত মেয়র হিসেবে সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমি আপনাদের সেবক হিসেবে নিরলসভাবে কাজ করে যাবো। ২ মে শনিবার বিকাল ৪টায় জে এম সেন হল প্রাঙ্গণে তার সম্মানে সনাতনী নাগরিক সমন্বয় কমিটি চট্টগ্রাম আয়োজিত বিশাল নাগরিক গন সংবর্ধনার জবাবে তিনি একথা বলেন। রাউজান পৌরসভার সাবেক মেয়র দেবাশীষ পালিতের সভাপতিত্বে ও এড. চন্দন তালুকদারের সঞ্চালনায় গণ সংবর্ধনায় নব নির্বাচিত কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী, শৈবাল দাশ সুমন ও নব নির্বাচিত মহিলা কাউন্সিলর মিসেস নিলু নাগকেও ক্রেষ্ট, ফুল দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. অনুপম সেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক লায়ন গভর্নর প্রফুল্ল রঞ্জন সিংহ, রাজনীতিবিদ ইন্দু নন্দন দত্ত, হিন্দু কল্যান ট্রাষ্টের ট্রাষ্টী রাখাল দাশগুপ্ত, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক রঞ্জিত কুমার দে, চট্টগ্রাম শিা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক রঞ্জিত ধর, বিশিষ্ট শিাবিদ ড. জ্যোতি প্রকাশ দত্ত, জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সাবেক সভাপতি শ্রী সুজিত কুমার বিশ্বাস, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এড. তপন কান্তি দাশ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজল কান্তি দত্ত, কার্যকরী সভাপতি বিমল কান্তি দে, এড. সুভাষ চন্দ্র লালা, মহানগর পূজা উদ্যাপন পরিষদ সভাপতি বিদ্যালাল শীল, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ সাধারণ সম্পাদক এড. চন্দন বিশ্বাস, বাংলাদেশ জুয়েলারী সমিতির সভাপতি মৃণাল কান্তি ধর, রাজনীতিবিদ খোরশেদ আলম, নব নির্বাচিত কাউন্সিলর চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, সনাতনী নাগরিক সমন্বয় কমিটির নেতা শ্রী নির্মল কান্তি দাশ, শিল্পপতি বাবুল ঘোষ বাবুন, রত্নাকর দাশ টুনু, ঝুন্টু চৌধুরী, গৌতম পালিত টিকলু, অমৃতলাল দে, চন্দন দে, তাপস দে প্রমুখ। গণ সংবর্ধনায় চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ড, থানা ও উপজেলা থেকে প্রায় বিশ হাজার মানুষ অংশ নেন। প্রায় হাজার খানেক মঠ-মন্দির, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্রেষ্ট ও ফুলে ফুলে তাঁকে অভিষিক্ত করা হয়।