দু’টি সাবমেরিনে নৌবাহিনী পরিণত হবে ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে

biman_bg_793831885নিজস্ব প্রতিবেদক: সোমবার চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গায় নেভাল একাডেমিতে ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার এবং মিডশীপম্যান ব্যাচের নবীন কর্মকর্তাদের গ্রীষ্মকালীন রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নৌবাহিনী প্রধান ভাইস এডমিরাল এম ফরিদ হাবিব কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও সালাম গ্রহণ করেন।

নৌবাহিনী প্রধান বলেন, ‘নৌবাহিনীতে হেলিকপ্টার ও মেরিটাইম পেট্রোল এয়ারক্রাফট সংযোজনের মাধ্যমে দ্বিমাত্রিক সক্ষমতা নিশ্চিত করা হয়েছে। আগামী বছরের মধ্যে নৌবাহিনীর বহরে এই দু’টি সাবমেরিন সংযোজিত হবে। এর মধ্য দিয়ে দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই প্রতিরক্ষা বাহিনী ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত হবে।’

তিনি বলেন, সমুদ্র সম্পদের সংরক্ষণ এবং শত্রুর আক্রমণ থেকে সমুদ্রসীমা সুরক্ষার বিষয়ে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। দেশের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার নৌবাহিনীকে আধুনিকায়নের পদক্ষেপ নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত কয়েক বছরে নৌবাহিনীর বহরে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক জাহাজ সংযোজিত হয়েছে।

নৌবাহিনীর প্রশিক্ষণের মানোন্নয়নের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে নবীন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের সময়কাল তিন বছরে উন্নীত করা হয়েছে। বিএসসি অনার্স এবং বিবিএ ডিগ্রি দেয়ার বিষয়টি কার্যকর হয়েছে। নবীন কর্মকর্তাদের শৃঙ্খলাবোধকে জীবনের সর্বোচ্চ পর্যায়ে স্থান দিয়ে বুদ্ধিমত্তা, জ্ঞান, প্রতিভা ও চৌকস নেতৃত্বের মাধ্যমে বিশাল জলসীমায় সার্বভৌমত্ব অক্ষুন্ন রাখার নির্দেশ দেন নৌবাহিনী প্রধান।’

নৌবাহিনীর ২০১৫ এর ‘এ’ ব্যাচের ৪ জন ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার এবং ২০১৩ এর ‘বি’ ব্যাচের ৫৬ জন মিডশীপম্যানসহ সর্বমোট ৬০ জন নবীন কর্মকর্তা কমিশন লাভ করেছেন। এদের মধ্যে ০৫ জন প্যালেষ্টাইন মিডশীপম্যান রয়েছেন।

ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার ইন্সট্রাক্টর এ্যাক্টিং সাব লেফটেন্যান্ট ফারুকুল ইসলাম শ্রেষ্ঠ ফলাফল অর্জনকারী হিসেবে ‘শহীদ মোয়াজ্জম পদক’ লাভ করেন।

মিডশীপম্যান ব্যাচের আল-আমিন খান সেরা চৌকস হওয়ার গৌরব অর্জন করে ‘সোর্ড অব অনার’ লাভ করেন।

এছাড়া মিডশীপম্যান সানজিদা আফরোজ সাদিয়া প্রশিক্ষণে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মান অর্জনকারী হিসেবে ‘বীরশ্রেষ্ঠ রহুল আমিন স্বর্ণপদক’ এবং মিডশীপম্যান মো.মিজানুল হক ইমরান তৃতীয় সর্বোচ্চ মান অর্জনকারী হিসেবে ‘নৌ প্রধান স্বর্ণপদক’ লাভ করেন।

গ্রীষ্মকালীন এ রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজে তিন বাহিনীর আঞ্চলিক অধিনায়কসহ শীর্ষ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, দেশী-বিদেশী কূটনীতিক, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী নৌকমান্ডো এবং শিক্ষা সমাপনী ব্যাচের ডাইরেক্ট এন্ট্রি অফিসার ও মিডশীপম্যানদের অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।