এক সপ্তাহের মধ্যে অবৈধ ডকইয়ার্ড সরানোর নির্দেশ

এক সপ্তাহের মধ্যে অবৈধ ডকইয়ার্ড সরানোর নির্দেশ
এক সপ্তাহের মধ্যে অবৈধ ডকইয়ার্ড সরানোর নির্দেশ
এক সপ্তাহের মধ্যে অবৈধ ডকইয়ার্ড সরানোর নির্দেশ

চট্টগ্রাম অফিস: এক সপ্তাহের মধ্যে কর্ণফুলীর তীর থেকে নূরে মদীনা ডকইয়ার্ড ও নুসরাত জাহান ডকইয়ার্ড সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে দুই প্রতিষ্ঠানকে দুই লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

কর্ণফুরীর তীরে অবৈধভাবে ডক ইয়ার্ড তৈরি করে নৌযান তৈরি করায় এ জরিমানা করা হয়। এছাড়া ১১টি নৌযানকে ৩ লাখ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একমাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে একজন ট্রাক ড্রাইভারকে।

চট্টগ্রাম বন্দরের নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ আবুল হাশেমের নেতৃত্বে এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, অনুমতি ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে ডকইয়ার্ড দুটিতে লাইটার ও মাছ ধরার ট্রলার তৈরি হচ্ছে। মঙ্গলবার সেখানে অভিযান চালিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। অনুমতি না থাকায় ইয়ার্ড দুটির মালিক আব্দুল হামিদ ও শেখ আহাম্মদকে এক সপ্তাহের মধ্যে ডকইয়ার্ড সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক লাখ করে দুই প্রতিষ্ঠানকে মোট ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া বন্দর জেটি এলাকায় অবৈধ অনুপ্রবেশ ও কার্গো নষ্ট করার অপরাধে আবুল বাহার নামে এক ট্রাক চালককে এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, নিয়ম লঙ্ঘনের দায়ে এম ভি মোহছেন আউলিয়া, এম ভি উদয়ের পথে-৪, এম ভি আশরাফুল আলম, এম ভি আলী হায়দার, এম ভি সী লিংক আনন্দ, এম ভি সাউদার্ণ স্টার-৫, এম ভি মালেক-১, এম ভি টি এস-১, এম ভি বর্ষণ-৬, এম ভি পি এন্ড টি ও ভলগেট নাদিমকে ৩ লাখ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা এবং ১ লাখ ৪৪ হাজার টাকা বকেয়া আদায় করা হয়।