নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল থাকায় ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল থাকায় ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল
নিজামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল থাকায় ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

চট্টগ্রাম অফিস: মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ হয়ে মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে মহানগর ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মিছিলটি নগরীর দারুল ফজল মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয় হতে শুরু হয়ে নিউ মার্কেট মোড়, জি.পিও মোড়, কোতোয়ালী মোড় হয়ে পুনরায় দারুল ফজল মার্কেটস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে গিয়ে মিষ্টি বিতরণের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

সভাপতিত্বের বক্তব্যে ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, পশ্চিমা বিশ্বের রক্তচক্ষুকে অগ্রাহ্য করে দেশরত্ন শেখ হাসিনা একটি স্বচ্ছ আন্তর্জাতিক ট্রাইবুন্যালের মাধ্যমে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ সম্পাদন করছেন। কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির দন্ডাদেশ বহাল রাখায় শেখ হাসিনার সরকার বিশ্ব মানবতার পতাকাকে আরও সুউচ্চ করেছেন। ৭৫ এর ১৫ আগস্ট পরিবারের সদস্যদের হারিয়ে তিনি নিজের জীবনকে দেশ ও জনতার জন্য উৎসর্গের শপথ নিয়েছেন বলেই আজ শত বাধা পেরিয়ে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন।

এ সময় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায়ে জাতি কলঙ্কমুক্ত হয়েছে। আজ এই সময়ের দ্বারপ্রান্তে এসে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিদের আরো একটি কলঙ্কমুক্তির দাবী তুলতে হবে। যে দাবীতে ৭৫ পরবর্তী সময়ে স্বীকৃত রাজাকার, আলবদর, আলসামসদের কারা রাজনৈতিক পুনর্বাসন করেছেন তাদের বিচার করতে হবে। বিচার করতে হবে কারা তৎকালীন সময়ে যুদ্ধাপরাধীদের হাতে মহান জাতীয় সংসদের পতাকা ও মন্ত্রী পরিষদের সদস্য করেছিলেন সেই সব মু্িক্তযুদ্ধের চেতনা বিরোধ প প্রেতাত্মাদের। রাজনৈতিক ও সামাজিক মর্যাদা ফিরিয়ে দিয়ে রাজাকারকে এদেশের ক্ষমতার সাধ ফিরিয়ে দিতে যারা মুখ্যভূমিকা পালন করেছে তাদের বিচার না হলে ৩০ লক্ষ শহীদের কখনো আত্মা শান্তি পাবে না।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন নগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নাজমুল হাসান রমি, জয়নাল উদ্দিন জাহেদ, ফারুক আহমেদ পাবেল, আ ফ ম সাইফুদ্দিন, শাহীন জোবায়ের বাপ্পী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, সুজন বর্মণ, গোলাম সামদানি জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নগর ছাত্রলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আকতার হোসেন সৌরভ, উপ সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন টিটু, দীপঙ্কর সৌম্য শান্তু, কাজী মাহমুদুল হাসান রনি, আবদুল আহাদ, মিজানুর রহমান মিজান, এহসানুল কবির ববি, সহ সম্পাদক নাদিম উদ্দিন, শাহজাহান সাজু, শেখর দাশ, সদস্য আরাফাত রুবেল, মিজানুর রহমান মিজান, মাহমুদুর রশিদ বাবু, এম.ই.এস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সরফুল আনাম জুয়েল, তোফায়েল আহমেদ মামুন, সিটি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শহিদুল ইসলাম, সাইফুল্লাহ সাইফ, ইসলামিয়া কলেজ ছাত্রলীগ নেতা বিকাশ দাশ, মো: আবিদ,চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাহমুদুল করিম, মনির ইসলাম, হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজ ছাত্রলীগ নেতা মাঈমুন উদ্দিন মামুন, ফখরুজ্জামান আল ফয়সাল প্রমুখ।