নয়দিন পরও সন্ধান মিলেনি অপহৃত চবি শিক্ষার্থীসহ চারজনের

নয়দিন পরও সন্ধান মিলেনি অপহৃত চবি শিক্ষার্থীসহ চারজনের
নয়দিন পরও সন্ধান মিলেনি অপহৃত চবি শিক্ষার্থীসহ চারজনের

চট্টগ্রাম অফিস :

নয়দিন পরও সন্ধান মিলেনি অপহৃত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলাম রণিসহ চারজনের। গত ২৪ মার্চ দুপুরে ছয়জন লোক নিজেদের ডিবি পরিচয় দিয়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর খুলশী থানাধীন আল ফালাহ গলির বাসা থেকে পরিবহন ব্যবসায়ী এস এম শফিকুর রহমান এবং তার দুই শ্যালক মো. হাসান তারেক ও মোয়াজ্জেম হোসেন সাথীকে তুলে নিয়ে যায়।

চবি শিক্ষার্থী রণিকে উদ্ধারে পুলিশ সাধ্যমতো চেষ্টা করার কথা বললেও অন্য তিন অপহৃতের ব্যাপারে কিছুই জাননে না বলছে পুলিশ। দুই আসামিকে গ্রেপ্তারও করেছে। কিন্তু অন্য তিন অপহৃতের ব্যাপারে পুলিশ কিছুই জানে না বলে দাবি করা হচ্ছে।

এদিকে পরিবারের কনিষ্ঠ সদস্য রণিকে পুলিশ উদ্ধার করতে না পারায় হতাশ হয়ে পড়েছে তার পরিবার। পুলিশ কর্মকর্তারাও দিতে পারছে না কোনো তথ্য।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের এমবিএর শিক্ষার্থী রণিকে গত ২৫ মার্চ নগরীর মুরাদপুর থেকে অপহরণ করে একদল যুবক। এর আগে রণির খোঁজে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক নম্বর গেইট এলাকায় একটি কমিউনিটি সেন্টারের পাশে তার বন্ধু নুরুল্লাহকে মারধর করে কয়েক যুবক। রণির বন্ধুদের ধারণা, ওই যুবকরাই পরে মুরাদপুর থেকে রণিকে অপহরণ করে।

এ ঘটনায় পাঁচলাইশ থানায় রণির এক বন্ধু বাদী হয়ে একটি মামলা করে। মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়। রণি অপহরণ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে হাটহাজারী থেকে পিন্টু নামের এক দোকানিকে ও পরে সুখেন কুমার নাথ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

অন্যদিকে শফিকুর রহমানের পরিবারের দাবি ,২৪ মার্চ ডিবি পুলিশ পরিচয়ে বাসা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় পরিবহন ব্যবসায়ী এস এম শফিকুর রহমান এবং তার দুই শ্যালক মো. হাসান তারেক ও মোয়াজ্জেম হোসেন সাথীকে। এরপর থেকে তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না।অন্যদিকে গত ৩০ মার্চ সংবাদ সম্মেলনে হাসান তারেকের সন্তানসম্ভবা স্ত্রী ফৌজিয়া আইনুন নাহার রুমি তার স্বামী ও ভাইদের ফিরিয়ে দেয়ার আকুতি জানিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি জানান, ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর নগর গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের পরিবার। কিন্তু ডিবির পক্ষ থেকে বলা হয় তারা কাউকে তুলে নেয়নি।

এ বিষয়ে পাঁচলাইশ থানার ওসি মহিউদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘আমরা দুজনকে ইতিমধ্যে আটক করেছি। পিন্টু আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। সুখেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ডে আনা হয়েছে। খুব শিগগর রণিকে উদ্ধার করা সম্ভব হবে।