দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়কের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

imagesনজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম অফিস। চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মোহাম্মদ জসিম উদ্দীনের বিরুদ্ধে কমিটির অধিকাংশ যুগ্ন আহবায়ক সদস্যরা তাকে অপসারণ করে নতুন কমিটি দেয়ার জন্য কেন্দ্রকে জানিয়েছে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।
জানা যায় চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটি গত ২০১১ সালের ২০ ফেব্র“য়ালী জসিম উদ্দীনকে আহবায়ক ও শহীদুল ইসলামকে সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক লোকমান শাহ, মোহাম্মদ আলী, আজগর আলী, বখতিয়ার উদ্দীন, ফজলুল কবির, ফজলুল কাদেও, জমির উদ্দীন চৌধুরী, শাহ নেওয়াজ, এহেতাজুল আজিম, সাইফুল ইসলামকে যুগ্ম আহবায়ক করে ১৪৫ সদস্য বিশিষ্ঠ দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়। পরবর্তীতে দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জসিম উদ্দীন ও সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শহীদুল ইসলাম যুগ্ন আহবায়কদেও না জানিয়ে টাকার বিনিময়ে ২০৫ জনের কমিটি গঠন করেন। এর পর থেকে যুগ্ম আহবায়ক ও সদস্যদেও সাথে বিরোধ সৃষ্ঠি হয়েছে। কমিটি গঠনের পর থেকে তিন বছরে দক্ষিন জেলা ছাত্রদল একটি মিটিং পর্যন্ত ডাকতে পারেনি। কোন উপজেলা ও পৌরসভা কলেজের কর্মীদের সাথেও একদিনও সাংগঠনিক কাজ করা হয়নি। সর্বশেষ ২০১৩ সালে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের আহবানে একটি মিটং হলেও তিন বছরে দক্ষিন জেলা ছাত্রদল প্রাথমিক কাজগুলোও করতে পারেনি। অনেকেে অভিযোগ ছাত্রদলের দক্ষিন জেলা কমিটিকে ব্যর্থতার অপবাদ নিয়ে বিদায় নিতে হবে। এব্যাপাওে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির সদস্য আবদুর রহিম ও কামাল উদ্দীন জানান আমরা দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের সদস্য হলেও আমাদের চেহেরা দেখার জন্য একদিে ডাকা হয়নি। এ কমিটি বাতিল কওে যোগ্য ও দক্ষ ব্যক্তিকে দিয়ে দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠনের জন্য ম্যাডামের দৃষ্ঠি আর্কষন করছি।
এব্যাপারে যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ আজগর আলী বলেন, আহবায়কের সাথে কোন নেতা কর্মীদের সাথে যোগাযোগ নেই কয়েকটি এলাকায় টাকার বিমিময়ে কমিটি দেয়ায় তাকে কেউ পছন্দ করছে না। দক্ষিন জেলায় এ পর্যন্ত একটি মিটিংও ডাকতে পারেনি। এব্যাপাওে যুগ্ম আহবায়ক ফজলুল কাদের বলেন দক্ষিন জেলার আহবায়ক কমিটি হয়েছিল তিন মাসের জন্য কিন্তু তিন বছরে পুনাঙ্গ কমিটি তো দুরের কথা একটি মিটিং হয়নি আমি এ ব্যার্থার দায়ভার শুধু আহবায়ক ও সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক দুজনের আমি তাদের এসবক কার্যকালাপ থেকে যুবদলের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়ছি। যুগ্ম আহবায়ক জমির উদ্দীন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে সব চেয়ে ছাত্রদলের ব্যার্থ কমিটি দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের এ কমিটি সাংগঠনিক কর্মকান্ডের চেয়ে অর্থ বানিজ্যকে প্রধান্য দিতে গিয়ে জসিম উদ্দীন সংগঠনের বিরাট ক্ষতি করেছে সেটা পুষিয়ে আসা কোন ভাবেই সম্ভব নয় এ কমিটি বাতিল কওে যোগ্য ব্যাক্তিকে দিয়ে দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের পুনরায় কমিটি গঠনের জন্য কেন্দ্রের নিকট দাবী জানান।
এ প্রসঙ্গে ছালেহ জহুর নামের আরেক যুগ্ন আহয়াক বলেন আমাদের কমিটি কাজ কিছু হলেও করেছি একেবারে কিছু করেনি তা নয়।
এব্যাপারে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক শহীদুল ইসলাম বলেন, আমরা যতটুকু সম্ভব সাংগঠনিক কাজ করার চেষ্ঠা করেছি । আমাদের কমিটির কিছু নেতার অসযোগিতা ও বিএনপির কোন্দলের কারনে আমরা সাংগঠনিক ভাবে কাজ করতে গিয়ে ব্যাক্তি কেন্দ্রীক নেতার অনুসারীদের পদ পদবী নিয়ে সমস্যায় পড়ছি। এব্যাপারে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জসিম উদ্দীন বলেন, আমারা বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো আনা হয়েছে অধিকাংশ মিথ্যা কিন্তু তিন বছওে কোন মিটিং করতে না পারার বিষয়ে জানতে চাইলে লাইন মোবাইলের লাইন কেটে দেন পরে কথা বলবে বলে জানান।
এব্যাপাওে চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, দক্ষিন জেলা ছাত্রদলের কিছুটা সমস্যা ছিল কিন্তু তারা এখন সবাই মিলে মিশে কাজ করছে বিভিন্ন কর্মসূচীতে আমাদের সহযোগিতা করছে।
এব্যাপারে বিএনপির কেন্দ্রীয় ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক সভাপতি শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী বলেন, চট্টগ্রামের দক্ষিনের কমিটি নিয়ে অভিযোগ রয়েছে আগামীতে নতুন কমিটিতে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তাদেও বাদ দিয়ে ত্যাগী ও মেধাবীদের দিয়ে কমিটির গঠন করা হবে।