চট্টগ্রামে ঘুষের টাকা জোগাড় করতে অপহরণ

kidচট্টগ্রাম অফিস: চট্টগ্রাম বন্দরে গাড়িচালক পদে চাকুরির জন্য ঘুষের টাকা জোগাড় করতে গিয়ে নগরীতে একটি অপহরণের ঘটনা ঘটেছে তবে পুলিশ শুক্রবার রাতে নগরীর হালিশহর থানার খান বাড়ী আনন্দধারা আবাসিক এলাকা থেকে তিন অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার হওয়া তিন জন হল, মো.জসীম, মো.ইসমাঈল ও মো.সাঈম ইসলাম। এ সময় পুলিশ অপহৃত ব্যক্তি ও অপহরণ কাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেট কারও উদ্ধার করেছে। হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আবু মোহাম্মদ শাহজাহান কবির বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের ড্রাইভার পদে চাকুরীর জন্য দুই লক্ষ টাকা জোগাড় করতে চার জন মিলে অপহরণের ঘটনা ঘটায়। এর পর পাঁচ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৩ নভেম্বর রাতে বিয়ে থেকে ফেরার পথে হালি শহর থানার ওয়াপদা মোড় থেকে পাহাড়তলীর হাজী এখলাছুর রহমানের ছেলে ইয়াকুব আলীকে অপহরণ করে অপহরণকারীরা। অপকরণকারীরা ইয়াকুবের মোবাইল থেকে তার ভাইয়ের কাছে ফোন করে পাঁচ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। ইয়াকুবের পরিবার হালিশহর থানাকে বিষয়টি জানানোর পর অভিযানে নামে পুলিশ। শুক্রবার রাতে হালিশহর খান বাড়ী আনন্দ ধারা আবাসিক এলাকায় পুলিশের তৈরী করা ফাঁদে মুক্তিপণ নিতে এসে ধরা পড়ে অপহরণকারী জসীম ও ইসমাইল। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অপহৃত ইয়াকুবকে উদ্ধারে ছোটপুল এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ । এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অপহরণকারীরা ইয়াকুবকে হাত পা বাঁধা অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। এরপর হালিশহর এসওএস শিশু পল্লী এলাকার মসজিদের সামনে থেকে অপহরণকারী দলের সদস্য নাঈম ইসলাম ও মইন্যাপাড়ার বালুর মাঠ এলাকা হতে অপহরণ কাজে ব্যবহৃত সাদা রংয়ের প্রো বক্স গাড়ী (চট্ট মেট্রো-খ-১১-১৪৫৮) উদ্ধার করা হয়। তবে অপহরণকারী দলের অন্য সদস্য মো.লতিফ পলাতক আছে। এ ঘটনায় হালিশহর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে ওসি জানিয়েছেন।