এম এ মান্নান ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ও খাঁটি দেশপ্রেমিক : রেজাউল করিম চৌধুরী

জয়নাল আবদিন নাইমন, স্টাফ রিপোর্টার: চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চসিক নির্বাচনের মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্সের পূর্বাঞ্চলীয় জোনের উপ-অধিনায়ক, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সাবেক সদস্য, সাবেক সফল মন্ত্রী, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মরহুম জননেতা এম এ মান্নান ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক ও খাঁটি দেশপ্রেমিক। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে মানবসেবায় নিজেকে উৎসর্গ করে গেছেন। বর্তমান প্রজন্মের সকলকে মরহুম এম এ মান্নানের জীবন থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে রাজনীতি করার আহ্বান জানান তিনি।

সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর সকালে এম এ মান্নানের ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মরহুমের দামপাড়াস্থ কবর প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন রেজাউল করিম চৌধুরী।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, মরহুম এম এ মান্নান একজন শুদ্ধাচারী রাজনীতিক ছিলেন। তিনি রাজনীতিতে সৃজনশীল কর্মী সৃষ্টির কারিগর। তার আদর্শিক দায়বদ্ধতা আমাদেরকে প্রকৃত রাজনীতিক হিসেবে গড়ে ওঠার প্রেরণা যুগিয়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে এমপি-মন্ত্রী হয়েছিলেন এম এ মান্নান। কিন্তু মন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও তিনি কোনো অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়েননি। তার মতো ত্যাগী নেতার আজ অনেক অভাব।

সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, এম এ মান্নান, আপাদমস্তক একজন গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক নেতা ছিলেন। তাকে খুব কাছ থেকে দেখেছি, রাজনীতিতে তিনি সুদক্ষ কর্মী গঠনে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখতেন। যে কোনো সংকটে খুব সহজেই নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে পারতেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এম এ রশিদ, মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দীন।

সভামঞ্চে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট সুনীল কুমার সরকার, চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, শফর আলী, শেখ মোহাম্মদ ইসহাক, নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, সৈয়দ হাসান মাহমুদ শমসের, অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, মোহাম্মদ হোসেন, জহুর আহমদ, দিদারুল আলম চৌধুরী, আবদুল আহাদ, মো. আবু তাহের, ডা. ফয়সল ইকবাল চৌধুরী, শহীদুল আলম, মো. আবুল মনসুর, নুরুল আবছার মিয়া, সৈয়দ আমিনুল হক, বখতিয়ার উদ্দিন খান, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, রোটারিয়ান মো. ইলিয়াছ, ড. নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, বেলাল আহমদ, ফিরোজ আহমদ, সিদ্দিক আলম, সাহাব উদ্দিন আহমদ, মোমিনুল হক, মো. আনসারুল হক, রেজাউল করিম কায়সার, আতিকুর রহমান আতিক, আবছার উদ্দিন চৌধুরী, সিদ্দিক আহমদ, আবুল কাশেম, এম এ হান্নান, সলিমুল্লাহ বাচ্চু, শেখ সরওয়ার্দী, মো. আবুল বশর, সৈয়দ মো. জাকারিয়া, কাজী রাশেদ আলী জাহাঙ্গীর, ইকবাল হাসান, মোসলেম উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, দিদারুল আলম মাসুম, খালেদ হোসেন খান মাসুক প্রমুখ।