স্রস্টার বিচার নিয়ন্ত্রণহীন করোনায়

 

এস.এম.মাঈন উদ্দীন রুবেল

মহামারী কভিড-নাইনটিন
যেকোন সময় রূপ পরিবর্তনশীল।
কত ভেকসিন আবিষ্কার হয়
তুবও যথাযথভাবে কার্যকর নয়।
আল্লাহ প্রদত্ত করোনা
ভ্যাকসিনও দমন করতে পারে না।
লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা
তবুও আমাদের হৃৎপিণ্ডে
আল্লাহর ভয় বিরাজ করে না।

পার্শ্ববর্তী ভারতের করোনার দৃশ্য অবলোকনে
মনটা সংকীর্ণ হয়ে উঠে।
বাড়ছে মুসলমানদের গনকবর,
মৃতদেহ অগ্নিপুড়ানোর দৃশ্য শ্মশানে হিন্দুদের,
করোনা আক্রান্ত রোগীর দেহ
অক্সিজেন খাঁকতিতে হাহাকার।
এ কেমন কেমন করোনা সুনামী আল্লার?

ভ্যাকসিন যখন আবিষ্কার হয়
মানুষের মনোবল দৃঢ় হয়,
আল্লাকে তখন ভূলে রয়
ভরশা যখন ভ্যাকসিন হয়।

সৃজনকর্তা হরেক রকম করোনা দেয়
করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়ায়
করোনা আক্রান্ত রোগী বাড়ায়
অক্সিজেন সংকট দিয়ে মৃত্যু ঘটায়।

প্রভূ যে সব কিছুর উর্ধ্বে হয়
খোদা যে রোগ-মুক্তির মালিক হয়
বহু নাস্তিকের বিশ্বাস নয়
ভ্যাকসিন যখন আবিষ্কার হয়।

আল্লাহ যখন গজব দেয়
শুধু ভ্যাকসিনেও রক্ষা নেই,
চিকিৎসা-সরঞ্জাম অপ্রতুলতা দেখা দেয়
অক্সিজেন সংকটে প্রাণ নেই।
বসুন্ধরা-জুড়ে পশ্চিমা সংস্কৃতির পাপে
প্রভূ মানবের নিকট
করোনা দেয় চেপে।
ধরণী আজ মনুষ্যের নেত্রজেলে অস্থির
বিষাদময় জীবন, বিষাদময় জগৎ
রহমান তুমি ভূমণ্ডল কর স্বস্থির।

খোদা তোমার ধর্ম,
মুমিনদের কলবে আঘাত
তোমার ঘর মসজিদ ভাঙা
তুমি তাদের জীবনে করোনা কর্তৃক দিয়েছ হানা।
রেহাই নেই তোমার থেকে
চলমান দৃশ্যে তার প্রমাণ মিলে।
মসজিদ ভাঙার গজবে বুঝল তুমি অদ্বিতীয়
ইসলাম ধর্মই তোমার একমাত্র মনোনীত।

মানব মানবকে হত্যা করে
ধর্মান্ধতার কবলে পড়ে,
সবাইতো সৃজন তোমার
কেনই পাশবিক হত্যার স্বীকার?
তোমার বৃত্তি যখন বান্দা করে
করোনা মারফত তা বুঝায় দিলে
নিষ্কৃতি নেই তোমার বিচার হতে
বর্তমানে বুঝল তা হাড়ে হাড়ে।

রাজার পাপে যেমন রাজ্য অশান্তি
তেমনি বিশ্বব্যাপী কিছু জানোয়ারদের কুকর্ম
আর আপনার হাবীব (সাঃ) কে
অবমাননার হেতু ধরাধাম আজ অশান্তি।
ফলস্বরূপ সকলের উপর করোনার
কম-বেশি প্রভাব পড়ে
তুমি বিনে রক্ষার কে আছে?
সে বিশ্বাস আনতে হবে সকলের অন্তরে।