পেরুর জালে ব্রাজিলের চার গোল

পেরুকে উড়িয়ে দিয়ে কোপা আমেরিকায় টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে ব্রাজিল। বাংলাদেশ সময় আজ বৃহস্পতিবার সকালে গতবারের ফাইনালিস্টদের ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। নেইমার ছাড়াও গোল পেয়েছেন সান্ড্রো, রিবেইরো ও রিচার্লিসন।

আগের ম্যাচে ভেনেজুয়ালার বিপক্ষে ৪-৩-৩ ছকে খেললেও আজকের ম্যাচে ৪-৪-২ ছক বেছে নেন ব্রাজিল কোচ। সান্তোসের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে শুরুটা আলো ছড়ানো না হলেও আক্রমণে খুবই ক্ষুরধার ছিল ব্রাজিল। যখনই সুযোগ পেয়েছে কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছে সেগুলো।

তার প্রমাণও মিলেছে ১২তম মিনিটেই। বাম প্রান্ত থেকে এভারটনের ক্রস গোলমুখ থেকে পুরোপুরি ক্লিয়ার করতে পারেনি পেরুর ডিফেন্স। একজনের হেডের পর সেটি পড়ে জেসুসের পায়ে। গোলমুখে বক্সের ডান প্রান্ত থেকে দেওয়া তার শট থেকেই ভলিতে জাল কাঁপান অ্যালেক্স সান্দ্রো।

এর ২৭ মিনিট বাদেই প্রায় গোল মুখের কাছে চলে গিয়েছিল পেরু। তবে সেবার কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন দানিলো। যোগ করা সময়ে দ্বিতীয় গোলের কাছে চলে যায় ব্রাজিল। কিন্তু দুর্ভাগ্য পেনাল্টি অঞ্চলে নেইমারের দেওয়া বল ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে দেন প্রথম গোলদাতা সান্দ্রো।

বিরতির পর আবারও গোলের কাছে চলে এসেছিল সেলেকাওরা। কিন্তু ৫২ মিনিটে জেসুসের দেওয়া পাস লক্ষ্যের মধ্যে রাখতে পারেননি দানিলো। তবে ৬৮ মিনিটে আর রক্ষা হয়নি। ফ্রেডের দেওয়া পাস ধরে নিচু শটে ব্যবধান বাড়িয়ে নেন ব্রাজিল অধিনায়ক নেইমার। ৭৯তম মিনিটে ফ্রি কিক থেকে নিশ্চিত গোলের সুযোগ মিস করেন পেরুর ভেলেরা।

তবে শেষ দিকে এসে পেরুর রক্ষণে ত্রাস ছড়িয়েছে ব্রাজিল। তারই ধারাবাহিকতায় ৮৯তম মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ করে সেলেকাওরা। প্রথম দুটি গোলের চেয়ে নজরকাড়া এক পারফরম্যান্সে গোলটি করেন এভারটন রিবেইরো। মিডফিল্ড থেকে নেইমারের বাড়িয়ে দেওয়া বল থেকে গোল মুখে ক্রস করেছিলেন রিচার্লিসন। ততক্ষণে এগিয়ে আসা এভারটন কোনও ভুল করেননি। প্রথমবারের মতো ব্রাজিলের হয়ে গোলের দেখা পেলেন তিনি।

পরে ৯০+৩ মিনিটে ফিরমিনোর শট পেরু গোলকিপার সেভ করতে পারলেও শেষ রক্ষা হয়নি। পরের চেষ্টায় রিচার্লিসনের জালের দেখা পেলে ৪-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। এই জয়ের পুরো ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকলো ব্রাজিল। এক জয় ও এক ড্রয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে এ-গ্রুপের দ্বিতীয়স্থানে কলম্বিয়া।