চট্টগ্রামে তল্লাশি জোরদার, থাকছে জরিমানাসহ আটক

চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় তল্লাশির পাশাপাশি জরিমানা আদায়, আটক, মামলাসহ বিভিন্ন ধরনের শাস্তি নিশ্চিত করতে তৎপরতা বাড়িয়েছে প্রশাসন। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাসা থেকে বের হলেই এসব শাস্তির মুখামুখি হতে হবে নগরবাসীকে।এ দিকে সকাল থেকে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি কে সাথে নিয়ে ১৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে যৌথ অভিযান শুরু করেছ চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন।

আজ মঙ্গলবার, ৬ জুলাই চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ থেকে এ যৌথ অভিযানের নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসক মুমিনুর রহমান।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক জানান, করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন শুরু থেকে তৎপর রয়েছে। এখন সংক্রমণ আরো বেড়ে যাওয়ায় এবং দ্বিতীয় দফা কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন করতে তৎপরতা আরো বাড়ানো হয়েছে। আজ মঙ্গলবার থেকে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবির সহয়তায় ১৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ২ জন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযানে জনসচেতনতার পাশাপাশি আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে জরিমানা, আটক, মামলাসহ কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) জনসংযোগ কর্মকর্তা এডিসি আরাফাতুল ইসলাম জানান, দ্বিতীয় দফা কঠোর লকডাউনের নতুন কোন নির্দেশনা এখনো না পেলেও নগরীর ২৭ টি পয়েন্টে চেকপোষ্টসহ কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে সিএমপি। সাধারণ মানুষকে সচেতন করার প্রতি বেশি গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে সিএমপি। চেকপোষ্ট গুলোতে জরুরী কাজ ছাড়া বের বের হওয়া মানুষদের ফেরত পাঠানো হচ্ছে এবং জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বের হওয়া যানবাহন গুলোকে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকারি বিধিনিষেধ কঠোরভাবে প্রতিপালনে এবার চট্টগ্রামেও এককভাবে মাঠে সক্রিয় হয়েছে পুলিশের এলিট ফোর্স র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্ন জাগায় চেকপোস্ট কার্যক্রম ও রোবাস্ট পেট্রোলিংয়ের মাধ্যমে অপ্রয়োজনে বের হলেই আটক করবে র‍্যাব।

র‍্যাব-৭ এর এএসপি (মিডিয়া) নুরুল আবসার জানান, চেকপোস্টগুলো থেকে বিনা প্রয়োজনে সকলকে ঘরের বাইরে যাওয়ার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। সরকারি বিধিনিষেধ চলাকালে জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে যথাযত প্রশ্নের জবাব দিতে হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজনে ঘরের বাইরে যাওয়ার ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান করা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ প্রদান করা হচ্ছে।

কঠোর লকডাউন চলাকালে পাড়া-মহল্লায়, অলি-গলিতে বা চায়ের দোকানে আড্ডা দিলে তাদের আটক করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।