সুবিধা থেকে বঞ্চিত: রাঙ্গাপানি সরকারি প্রাথমিক স্কুল

Rangapani sorkari school photo,ctgমোঃ আবু মনসুর, প্রতিনিধি ফটিকছড়ি:সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত রাঙ্গাপানি সরকারি প্রাথমিক স্কুল। ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের ১৯৯৬ সালে রাঙ্গাপানি প্রাথমিক স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ ১৮ বছর পর অনেক জল্পনা কল্পনা অবসান ঘটিয়ে ২০১৩ই জুলাই মাসে বাংলাদেশ শ্রমিক ইউনিয়ন প্রধান উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম জেলা কমিটির সভাপতি তপন দত্ত এর অবদানে স্কুলটি সরকারি করণ করা হয়। সরকারি আওতাভূক্ত ২ বছর পার হলেও কোন সরকারি ভবন, আসবাবপত্র, শিক্ষক নিয়োগ, সরকারি শিক্ষকের বেতন, সরকারি উপবৃত্তি আরো বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত রাঙ্গাপানি সরকারি প্রাথমিক স্কুল।সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, টিন ও বাঁশের তৈরী স্কুলের মধ্যে ছাত্র-ছাত্রীরা মাটিতে বসে লেখাপড়া করতেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের তুলনায় শ্রেণী কক্ষ খুবই কম। শ্রেণী ক্লাসে ছাত্র-ছাত্রীদের বসার তেমন জায়গা নেই। অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রীরা উপজাতি।এই স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা জ্যোস্না রানী দাস বলেন, আমাদের স্কুলের মোট ছাত্র-ছাত্রী ৩শ ৫৬ জন। জাতীয় সরকারি করণের ২য় ধাপে উন্নিত হলেও শিক্ষকের বেতনের কোন ব্যবস্থা হয়নি। এই স্কুলে সরকারি উপবৃত্তি না থাকার কারণে ছাত্র-ছাত্রীরা ৩ কি.মি দূরে অন্য স্কুলে চলে যায়। গত ২০১৪ সালে সমাপনী পরীক্ষায় পাশের হার ১০০%। স্কুলটি টিন ও বাঁশের তৈরী হওয়ায় আগামী বর্ষাকালে ঝড়-বৃষ্টির কবলে পড়লে উড়ে যাওয়ার আশংকা আছে।হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন চৌধুরী বলেন, স্কুলটি সরকারি আওতাভূক্ত হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের করার কিছু নেই। তবে এলাকার স্বার্থে স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা করব।এই ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাছির উদ্দীন বলেন, আমরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে চিঠি প্রেরণ করেছি।
ফটিকছড়ি সংসদ সদস্য ও তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর ভান্ডারী বলেন, এই স্কুলটি ব্যাপারে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে খোঁজ নেওয়ার জন্য বলেছি। আশা করি ব্যবস্থা করব।